জামালপুরে দুই পুলিশ সদস্য ও দুই ভুয়া সাংবাদিকের শেল্টারে ১৩ পতিতার লাইসেন্স বিহীন যৌন ব্যবসা

0
2594

জামালপুর প্রতিদিনঃ
জামালপুর শহরের পৌরসভার আওতাধীন ১টি পতিতা পল্লী-গঠিত রয়েছে। বিভিন্ন দেশ বিদেশ গ্রাম ও শহর অঞ্চলের উঠতি বয়সের যুব সমাজরা এসে যৌন পিপাসা মিটায়, কখনো বিলকিসের কাছে কখনো পারভীনের কাছে কখনো মলির কাছে ও কখনো মেরিনার কাছে কখোনো সাকিলার কাছে যৌন পিপাসা মিটাচ্ছে। জামালপুর পাতিতা পল্লী তে ৩০০ জন যৌন কর্মীর বসবাস ৭৫ বাড়ীতে,শহরের মধ্যস্থলে ও প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত। এই পতিতা পল্লীতে রয়েছে২৫টি চুলাই মদের দোকান ,১০টি গাজার দোকান,হিরোইন,প্যাথেটিন ও বিভিন্ন মাদকের রমরমা ব্যবসা যা সম্পন্ন অবৈধ। প্রসাশনকে বাট্টা দিয়ে চলছে মাসর পর মাস পতিতা পল্লীতে দক্ষিণে রেখা সর্দারনীর বাড়ীতে ১৩ জন পতিতা লাইসেন্স বিহীন অবৈধ ভাবে দিনের পর দিন দেহ ব্যবসা চালাচ্ছে। রেখা সর্দারনির কাছ থেকে মসের পর মাস বাট্টা খাচ্ছেন পুলিশ সদস্যএএসআইরফিকুল ইসলাম ও এএসআই সৈয়ব আক্তার  একই স্থানে ও দুই ভূয়া ভন্ড,প্রতারক সাংবাদিক মোঃ আজাদ মোল্লা পল্লীকণ্ঠ প্রতিদিন  ও এম. এ আঃ জলিল আজকের জামালপুর। এই দুই ভুয়া সাংবাদিক এম এ জলিল ও মোফাজ্জল ”দৈনিক নবতান”  বিভিন্ন গ্রাম অঞ্ছল থেকে ১২,১৪ও ১৬ বছরের মেয়েদের সুলিয়ে বুলিয়ে এনে রেখা সর্দারনীর কাছে এক দরে বিক্্ির করছে। যেমনঃ মলি,পলি,শিল্পী,রিতা ও আরো অনেকে। অভিযোগ পাওয়া গেছে এই দুই ভুয়া ভন্ড প্রতারক সাংবাদিক মাদক ও পতিতা ব্যবসার সাথে জড়িত । কাজেই জামালপুরের ¯থানীয় প্রসাশনের কাছে দাবী মাদক ও যৌন ব্যবসা বন্ধের জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি এবং এসব অপকর্মের সাথে জড়িত ব্যক্তিদের আইনগত দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী করছি।

Advertisement
Advertisement

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here