বরগুনার কাজি পটুয়াখালী মাদ্রাসা প্রধান বিবাহ রেজিষ্ট্রি কাজে জনসাধারন ভোগান্তির শিকার

0
670

বিশেষ প্রতিবেদক বরগুনা জেলার নিকাহ্ রেজিস্টার পটুয়াখালী জেলার ১টি মাদ্রাসায় চাকুরি করার  ফলে বিবাহ রেজিষ্ট্র কাজে জনসাধারন ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। যা নিবাহ্ রেজিষ্ট্রি বিধিমালার পরিপন্থি।
২৪ সেপ্টেম্বর ১৯৯৪ ইং সালে বরগুনার আমতলী উপজেলার ঘটখালী গ্রামের আদেল উদ্দিন সিকদারের পুত্র মোহাম্মদ শাহ আলম পটুয়াখালী সদর উপজেলার হাজিখালী মুহাম্মাদিয়া আলিম মাদ্রাসার ইবতেদায়ী প্রধান হিসেবে চাকুরিতে যোগদান করেন। ৮ বছর পর ২০০২ সালের ২৫ নভেম্বরে তিনি চাকরির কথা গোপন করে বরগুনার আমতলী উপজেলার ৫ নং চাওড়া ইউনিয়নের জন্য নিকাহ্ রেজিস্টার হিসেবে কাজে যোগদান করেন। একই ব্যক্তি ২টি পদে কর্মরত থাকার ফলে উভয় দিকেই, বিশেষ করে নিকাহ্ রেজিস্ট্রি বিঘেœর সৃষ্টি হচ্ছে।  জনসাধারন সারা দিনে তার অপেক্ষায় থেকে রাতে বর কনের বিয়ের কাজ সম্পন্ন করে গভীর রাতে বাড়ি ফিরতে হয়। অনেক সময় বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার পর মিষ্টি মুখ করানোর জন্য মিষ্টির দোকানও খোলা পাওয়া যায় না। এভাবে তিনি চাওড়ার কাজি হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি আমতলী পৌরসভার কাজির কাজও অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে পালন করে যাচ্ছে। পৌর বাসীও তার জন্য ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। সরকারী বিধিমালায় রয়েছে একজন নিয়োগ প্রাপ্ত কাজি তার কর্মস্থলের সংলগ্ন এলাকায় যে কোন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে পারবেন। মোহাম্মদ শাহ আলম বিধিমালার পরিপন্থি কাজ করে চলেছেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তিনি সরকার নির্ধারিত ফিসের চাইতে ৩গুণ-৪গুণ আদায় করে চলছেন। সরকারী বিধিমালায় রয়েছে ”মুসলিম বিবাহ তালাক নিবন্ধন আইন ও বিধিমালা এবং হিন্দু বিবাহ নিবন্ধন আইন, ২০১২,[ ২০। চাকরি গ্রহনের ক্ষেত্রে বাধা-নিষেধ।-কোন নিকাহ্ রেজিস্ট্রার তাহাকে যে এলাকার জন্য লাইসেন্স প্রদান করা হইয়াছে,সেই এলাকা বা উক্ত এলাকার সংলগ্ন কোন ওয়ার্ড, পৌরসভা বা ইউনিয়নের কোন মসজিদ অথবা বেসরকারী স্কুল,কলেজ অথবা বেসরকারী মাদরাসা ব্যতিত অন্য কোথাও চাকরি করিতে পারিবেন না।], এবং [২১। নিকাহ্ ও তালাক নিবন্ধন ফি, ইত্যাদি।]-[(১) একজন নিকাহ্ রেজিস্ট্রার ৪(চার) লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেনমোহরের ক্ষেত্রে প্রতি ১(এক) হাজার টাকা দেনমোহর বা উহার অংশ বিশেষের জন্য ১২.৫০(বার টাকা পঞ্চশ পয়সা) টাকা হাওে বিবাহ নিবন্ধন ফি আদায় করিতে পারিবেন, দেনমোহরের পরিমান ৪(চার) লক্ষ টাকার অধিক হইলে তৎপরবর্তী প্রতি ১(এক) লক্ষ টাকা দেনমোহর বা উহার অংশ বিশেষের জন্য ১০০(একশত) টাকা বিবাহ নিবন্ধন ফি আদায় করিতে পারিবেন, তবে দেনমোহরের পরিমান যাহাই হউক না কেন সর্বনি¤œ ফি ২০০(দুইশত) টাকার কম হইবে না।

Advertisement
Advertisement

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here