মোদীকে ভোট দেওয়া মানে পাকিস্তানকে ভোট দেওয়া

0
104

ইমরানের এই মন্তব্যের পর কটাক্ষ, বিদ্রুপ আর সমালোচনা নিয়ে মোদী-শিবিরকে আক্রমণ করতে আসরে নেমে পড়েছে কংগ্রেস, আম আদমি পার্টি, ন্যাশনাল কনফারেন্স এবং পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (পিডিপি)।

 

নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপি জিতে ক্ষমতায় এলে ভারত-পাকিস্তান শান্তির সম্ভাবনা আরও উজ্জ্বল হবে, ইমরান খানের এই বিস্ফোরক মন্তব্যের পরই তোলপাড় ভারতের রাজনীতি। এত দিন বিরোধীদের দিকে পাকিস্তান প্রেম এবং দেশদ্রোহিতার অভিযোগ তুলে নির্বাচনী প্রচারের ছক সাজাচ্ছিলেন মোদী-শিবিরের সেনাপতিরা। এরই মধ্যে ইমরানের এই মন্তব্যের পর কটাক্ষ, বিদ্রুপ আর সমালোচনা নিয়ে মোদী-শিবিরকে আক্রমণ করতে আসরে নেমে পড়েছে কংগ্রেস, আম আদমি পার্টি, ন্যাশনাল কনফারেন্স এবং পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (পিডিপি)।“এই দেশে বিরোধীরা কথা বলেন পাকিস্তানের ভাষায়, পাকিস্তানে সেনা অভিযান হলে মুষড়ে পড়েন ভারতের বিরোধীরা”— বিরোধীদের কোণঠাসা করতে এবং নির্বাচনী বৈতরণী পেরোতে এই ভাষাতেই এখন কথা বলেন নরেন্দ্র মোদী এবং তাঁর রাজনৈতিক শিবির। নির্বাচনের ঠিক আগে বালাকোটে সেনা অভিযান নিয়ে কোনও প্রশ্ন উঠলে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে দেরি হত না বিজেপির প্রচার ব্রিগেডের। পাকিস্তানের সঙ্গে হাত মিলিয়ে দেশকে টুকরো-টুকরো করতে আগ্রহী বিরোধীরা, এই অভিযোগও তোলা হয়েছে শাসক বিজেপির পক্ষ থেকে, যার সমালোচনায় বিরোধীদের ‘টুকরে-টুকরে গ্যাং’ নামও দিয়ে ফেলেছে তারা। এই প্রেক্ষিতে মোদীর সমর্থনে ইমরানের মন্তব্য যেন নতুন অক্সিজেন পেল বিরোধী শিবির। বিজেপির এত দিনের সুরে সুর মিলিয়ে কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালার টুইট, ‘পাকিস্তান সরকারি ভাবে মোদীর সঙ্গে হাত মিলিয়েছে। মোদীকে ভোট দেওয়া মানে পাকিস্তানকে ভোট দেওয়া।’ একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘মোদীজি, প্রথমে নওয়াজ শরিফ আপনার বন্ধু ছিলেন। এখন ইমরানও আপনার বন্ধু। ঝুলি থেকে বেড়াল বেরিয়ে গিয়েছে।’

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

7 + 12 =