বুঝতে পারলাম এটা খুশির কাঁন্না

0
57

পুলিশের মানবিকতা – আজ কচুক্ষেত মার্কেটে আমি এবং এস আই রাকিবুল স্যার ( ছবিতে) সেগমেন্ট ডিউটি করাকালীন হঠাৎ এক বৃদ্ধ মহিলা আমাদের গাড়ির কাছে এসে হাউমাউ করে কেঁদে উঠে।আমরা জিজ্ঞাসা করি চাচি আপনার কি সমস্যা? তখন উনি বলে বাবা.

ভিক্ষা করে রোজার মাসে কামানো সব টাকা ভিক্ষার থলিসহ চুরি হয়ে গেছে।চাচিকে জিজ্ঞাসা করলাম কোন জায়গা থেকে আপনার ব্যাগ চুরি হয়ে গেছে।তিনি জায়গা দেখানোর পর আমরা একটি জুয়েলার্সের সিসি ক্যামেরার সহায়তা নিয়ে দেখতে পাই ১০/১২ বছর বয়সের একটি ছেলে টুকরি( বাজার সদাই বহন করে যাতে) হাতে নিয়ে দাড়িয়ে এদিক ওদিক তাকিয়ে সুযোগে বৃদ্ধ মহিলার ব্যাগটি নিয়ে খুব দ্রুত সরে পড়ল।বুঝতে পারলাম ছেলেটি লোকজনের বাজার সদাই বহন করে গাড়িতে তুলে দেয়।কচুক্ষেত বাজারে লোকজনের বাজার সদাই গাড়ীতে তুলে দেওয়ার কাজ ( টুকরির কাজ) অনেকেই করে থাকে।তখন টুকরির কাজ করা ছেলেদের সহায়তায় ব্যাগ নিয়ে যাওয়া ছেলেটিকে সনাক্ত করে ওর বাসায় গিয়ে ওকে বাজারে নিয়ে আসি।

ছেলেটিকে জিজ্ঞাসাবাদে প্রথমে অস্বীকার করলেও সিসি টিভি ফুটেজ দেখালে সব স্বীকার করে।ওর দেখানো মতে বৃদ্ধার ভিক্ষা কারে জমানো ৮৭১০ টাকা উদ্বার করে বৃদ্ধের নিকট বুঝিয়ে দেই।বৃদ্ধ মহিলা টাকা পেয়ে আবারো হাউমাউ করে কেঁদে দেয়।বুঝতে পারলাম এটা খুশির কাঁন্না।

তৃপ্তির জায়গাটা হল বৃদ্ধ মহিলা রমজানের শুরুতে সিলেট থেকে ঢাকায় এসে খেয়ে না খেয়ে ভিক্ষা করে জমানো টাকা গুলো উদ্বার করে উনার হাতে বুঝিয়ে দিতে পেরে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

fourteen + seven =