নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ বাংলাদেশ পুলিশের গর্ব

0
78

এম ডি জাহিদ: আমাদের দেশের সব মানুষ যেমন এক নয়, পুলিশ বিভাগের সব পুলিশ সদস্যও এক নয়। কেহ ছুটছেন টাকার পিছনে আবার কেহ ছুটছেন অন্যায়ের বিরুদ্ধে। ঠিক তেমনী নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার  সব সময় অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার, অন্যায়ের কাছে মাথা নত করতে জানে না। যে পুলিশ সুপার গাজীপুর বাসির হৃদয়ের মনি কোঠায় স্থান করে নিয়েছেন। পর পর দুই বার গাজীপুর অবস্থান করে গাজীপুর বাসির সাধারণ মানুষের জান মাল রক্ষা করার দায়ীত্বে নিয়োজিত ছিলেন এবং আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রে রেখেছেন। অন্যায় অত্যাচার, চাঁদা বাজি, সন্ত্রাসি দমন করেছেন কঠোর হস্তে।

গাজীপুর বাসির হৃদয়ে আজও গাথা রয়েছে তাঁর নাম, তারা  ভুলতে পারেনি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদকে। তারই প্রেক্ষপটে দেখা যায় যে নারায়ণগঞ্জ জেলায়  প্রতিদিন দু-চারটি খুন, মাদক, সন্ত্রসী, জমি দখল ভূমি দুস্য, চাঁদাবাজি, ইভটিজিং এগুলো ছিল নিত্ত দিনের বিষয়। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ যোগদানের শুরুতে সব কিছু যেন বিলুপ্ত হয়ে গেছে। নেই খুন, মাদক ব্যবসা, জমি দখল গডফাদারদের আনাগোনা। যেখানে গার্মেন্টেস ফ্যাক্টুরীগুলিতে সব সময় গ্যাঞ্জাম লেগেই থাকত, অবরোধ ভাংচুর এগুলি ছিল নিত্তনৈমেত্তিক রুটিন। কোথায় গেল সেই গ্যাঞ্জাম, পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ যাদু করের মত সব অন্যায় অত্যাচার অবিচার বিলুপ্ত করে দিলেন।

যার বদৌলতে পেয়েছেন ভাল কাজের পুস্কার, ষষ্ঠ বারের মত ঢাকা রেঞ্জের সেরা পুলিশ সুপারের স্বীকৃতি। ঢাকা রেঞ্জের সম্মেলন কক্ষে জুলাই, ২০১৯ মাসিক অপরাধ ও আইন শৃংঙ্খলা পর্যলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। তাতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান। উক্ত সভায় ঢাকা রেঞ্জের সেরা পুলিশ সুপার হিসেবে নির্বাচিত করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদকে। এছাড়া সভা সূত্রে জানা যায় মদক উদ্ধার, বিভিন্ন মামলার রহস্য উদঘাটন, ওয়ারেন্ট তামিল, রাস্তা ঘাটের জানজট নিরাসন, হকার উচ্ছদ,

শিল্প প্রতিষ্ঠান এলাকায় শান্তি শৃংঙ্খলা বজায় রাখা, নারায়ণগঞ্জ জেলার আইন শৃংঙ্খলার সার্বিক পরিস্তিতি সন্তোষ জনক হওযায় সর্ব সম্মতিক্রমে মোহাম্মদ হারুন অর রশিদকে জুলাই, ২০১৯ মাসের সেরা পুলিশ সুপার মনোনীত করা হয়। এছাড়া পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ বিগত ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং এবং ২০১৯ইং জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারী পরপর টানা তিন বার সেরা পুলিশ সুপার নির্বাচিত হন। এছাড়া মে ও জুন’২০১৯ একই উপাদি পেয়েছেন।

এখানেই শেষ নয়, পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ পুলিশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রিয় সম্মাননা হিসাবে পরপর তিন বার বিপিএম ও দুইবার পিপিএম পদকে ভুষিত হন। নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার অন্যান্য সদস্যদের বুঝিয়ে দিলেন যে ভাল কাজের সুফল একদিন আসবেই। তাই বাস্তব হল, প্রভাত রয়েছে ভাল কাজের পুস্কার আর খারাব কাজের ত্রিস্কার, তবে এ বিষয়ে অভিজ্ঞ মহলের ধারোনা সব পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদের মতো হওয়া উচিত বলে উল্লেখ করেন।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × four =