সড়ক-মহাসড়কের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাটাই আমাদের লক্ষ্য : ওবায়দুল কাদের

0
249

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সারা দেশে নতুন করে যে সম্মেলন হচ্ছে, এই সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব আসছে। নতুন কমিটিতে যাতে অনুপ্রবেশকারী তথা বিতর্কিত লোকজন, অপকর্মকারীরা আওয়ামী লীগের কোন পর্যায়ে নেতৃত্ব গ্রহণ করতে না পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি আছে।

এদেরকে চিহ্নিত করা হয়েছে। দলে অনুপ্রবেশকারীদের একটি তালিকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের তত্ত্বাবধানে করেছেন। এ তালিকায় ১৫শ’র মতো অনুপ্রবেশকারীর নাম রয়েছে।

মন্ত্রী গতকাল দুপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুরে নির্মাণাধীন ফ্লাইওভার কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

আগামী দিনে দলের নেতৃত্বে কারা আসবে সে বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, যারা ভালো মানুষ, শিক্ষিত মানুষ, জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্যতা আছে তারা দলের নেতৃত্বে আসবেন। সাম্প্রদায়িক শক্তি থেকে যারা আসছে, চিহ্নিত চাঁদাবাজ, চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, চিহ্নিত ভূমিদস্যু, যাদের ইমেজ খারাপ, যাদের রাজনীতি জনগণের কাছে খারাপ এ ধরনের অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা প্রধানমন্ত্রী নিজের তত্ত্বাবধানে তৈরি করেছেন এবং তার কাছে এই তালিকা আছে।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, তালিকাটি প্রধানমন্ত্রী দলীয় কার্যালয়ে পাঠিয়ে দিয়েছেন। সেই তালিকা বিভিন্ন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্তদের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। সারা দেশে এখন যে সম্মেলন হচ্ছে, এই সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব আসবে। এই নেতৃত্বে যাতে অনুপ্রবেশকারী বা বিতর্কিত বা অপকর্মকারীরা আওয়ামী লীগের কোনো পর্যায়ের নেতৃত্বে আসতে না পারে সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী কঠোর নির্দেশ দিয়েছেন। সেই তালিকা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। সেই তালিকায় ১৫শ’র মতো নাম রয়েছে।

সড়কের শৃঙ্খলাটাই বড় সঙ্কট বলে মন্তব্য করেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী। তিনি বলেন, সড়ক-মহাসড়কের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাটাই আমাদের লক্ষ্য। এটাই আমাদের চ্যালেঞ্জ। সড়ক পরিবহন আইনটাও সে জন্যই করা হয়েছে।

অবকাঠামোগত উন্নয়ন আরও গতি পাবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাংকও একটি প্রকল্প দিচ্ছে। এখন আমরা আটঘাট বেঁধেই নেমেছি। অবকাঠামোগত সমস্যা কোথাও নেই। উন্নয়ন যথেষ্ট হয়েছে। শৃঙ্খলা না থাকলে এই উন্নয়নের কোনো দাম নেই। তাই শৃঙ্খলাটা এখন বড় সঙ্কট।

পরিদর্শনকালে মন্ত্রীর সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী ও গাজীপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক, ঢাকা বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, গাজীপুর জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম, পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, সড়ক ও জনপথের প্রকৌশলী মো. সাইফুলসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen − 12 =