বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারালেন ব্যবসায়ী

0
131

বরিশাল-বানারীপাড়া সড়কে সেবা পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছেন মাধবপাশা বাজারের পোল্ট্রি ব্যবসায়ী লিটন সরদার (৩৫)। শনিবার বিকেলে বরিশাল-বানারীপাড়া সড়কের শেখের হাট এলাকার বটতলা নামক স্থানে ওই ঘাতক বাসটি রংসাইডে এসে লিটন সরদারের মোটর সাইকেলকে চাপা দিলে ওই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত লিটন সরদার মাধবপাশা বাজারের পোল্ট্রি ব্যবসায়ী এবং মাধবপাশা ইউনিয়নের রবীন্দ্রনগর গ্রামের কাঞ্চন সরদারের একমাত্র ছেলে। সদালাপী ও মিষ্টভাষী লিটন সরদারের মৃত্যুতে মাধবপাশা বাজার ও বরীন্দ্রনগর গ্রামজুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বরিশালের আরিফ মেমোরিয়াল হাসপাতাল থেকে রোগী দেখে মোটর সাইকেল চালিয়ে মাধবপাশার রবীন্দ্রনগরে গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে ফিরছিলেন লিটন সরদার। এসময় বানারীপাড়া থেকে বরিশালের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা সেবা পরিবহনের মা-বাবার দোয়া (বরিশাল:ব-০৫-০০৬৩) নামের একটি বেপরোয়া গতির যাত্রীবাহী বাস একটি আলফাকে ওভারটেকিং করার সময় রাস্তার ডানে রংসাইডে চলে আসে।

এসময় দ্রুতগতির বাসটি লিটন সরদারের বাজাজ প্লাটিনা মোটর সাইকেলটিকে মুখোমুখি চাপা দেয়। নিয়ন্ত্রিত গতি এবং মাথায় হেলমেট পরিহিত থাকলেও তীব্র গতিতে থাকা ওই ঘাতক বাসটির চাকার নিচে নিমিষেই পিষ্ট হন তিনি। বাসের চাকা মাথার উপর দিয়ে চালিয়ে যাওয়ায় তার হেলমেট চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে মাথা থেতলে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান লিটন সরদার।

ঘাতক বাসের যাত্রী আলতাফ হোসেন জানান, বাসটির চালক টাইম খেয়ে প্রথম থেকেই গাড়িটি বেপরোয়া গতিতে চালাচ্ছিলেন। মাধবপাশা দুর্গাসাগর পাড়ের মোড় ঘোরার সময়ও একবার বাসটি একটি অটোরিক্সাকে চাপা দেওয়ার উপক্রম হয়েছিল। তৎক্ষণাত অটোচালক তার গাড়িকে রাস্তার বাইরে নামিয়ে দিয়ে কোনোমতে একিডেন্ট থেকে রক্ষা পেলেও বাসটি শেখের হাট এসে আবার রং সাইডে গিয়ে একটি মোটর সাইকেলকে মুখোমুখি চাপা দেয় এবং সেটাকে চাকার নিচের জোগান বানিয়ে ঠেলতে ঠেলতে প্রায় ২০০ ফুট দূরে নিয়ে যায়।

এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস.এম জাহিদ বিন আলম জানান, দুর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে গড়িয়ার পাড় থেকে সেবা পরিবহনের ঘাতক বাসটি আটক করা হয়েছে এবং ঘটনাস্থল থেকে নিহত লিটন সরদারের লাশ উদ্ধার করে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে ঘাতক বাসটি আটক করলেও পুলিশ পৌঁছার আগেই দ্রুত পালিয়ে যায় চালক। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 − eleven =