মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে পুলিশকে জনগণের বন্ধু হয়ে কাজ করতে হবে

0
117

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি মানুষের মৌলিক অধিকার ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে পুলিশকে জনগণের বন্ধু হয়ে কাজ করতে হবে।আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনবান্ধব পুলিশ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) প্রত্যেক সদস্যকে নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) ডিএমপি’র ৪৫তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে দেওয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

দিবসটি উপলক্ষে ডিএমপির সকল সদস্যকে আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দনও জানিয়েছেন রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পদমর্যাদায় এই দুই ব্যক্তি। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, ‘বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন, অগ্রগতি ও সমতাভিত্তিক সমাজ গঠনের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের এ গতিকে ত্বরান্বিত করতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কার্যকর ভূমিকা পালন করবে নগরবাসী তা প্রত্যাশা করে।’ আবদুল হামিদ বলেন, ‘১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে রাজারবাগ পুলিশ লাইনস-এ বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। মহান মুক্তিযুদ্ধসহ বিভিন্ন সময়ে দেশের নিরাপত্তা ও শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে অনেক বীর পুলিশ সদস্য মৃত্যুবরণ করেছেন। আমি মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বিভিন্ন সময়ে দেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় জীবন উৎসর্গকারী পুলিশ সদস্যদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি।’ রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেন, ‘বাংলাদেশ পুলিশের সর্ববৃহৎ ইউনিট ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এই ইউনিটের সদস্যরা আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। ডিএমপি’র সদস্যরা পেশাদারিত্ব, দক্ষতা ও আধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয়ে নগরবাসীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে। এছাড়াও সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ নিয়ন্ত্রণ, নগরীর আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, ট্রাফিক শৃঙ্খলা বজায় রাখা, নারী ও শিশুবান্ধব পুলিশিং ব্যবস্থা কার্যকর করা-সহ বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানে নিরাপত্তা প্রদানে ডিএমপি প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করেছে। ভবিষ্যতেও রাজধানীবাসীকে প্রত্যাশিত সেবা প্রদানে ডিএমপি নিরন্তর প্রয়াস অব্যাহত রাখবে-এটাই দেশবাসীর প্রত্যাশা।

এদিকে ডিএমপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশসহ বাংলাদেশ পুলিশের সব সদস্যকে শুভেচ্ছা জানিয়ে এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকার ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশকে একটি যুগোপযোগী, দক্ষ ও জনবান্ধব বাহিনীতে উন্নীত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশকে আধুনিক সরঞ্জাম ও প্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ করা হয়েছে।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘সম্প্রতি বাংলাদেশ পুলিশে অত্যন্ত স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় প্রায় ১০ হাজার কনস্টেবল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। নিয়োগ প্রক্রিয়াটি সফলভাবে সম্পন্ন করে বাংলাদেশ পুলিশ অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

পুলিশের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় জাতীয় জরুরি সেবা-৯৯৯ এরই মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। জনগণ ৯৯৯ ব্যবহার করে এখন খুব সহজেই ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স ও পুলিশের সেবা পাচ্ছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ২০০০ সালে পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্টের ভিত্তি গঠন করে দিয়েছিলাম। পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্টের অধীনে এরই মধ্যে কমিউনিটি ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আমাদের সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের ফলে বাংলাদেশ পুলিশে আজ গুণগত পরিবর্তন পরিলক্ষিত হচ্ছে। বাংলাদেশ পুলিশের সার্বিক উন্নয়নের ধারা ভবিষ্যতেও অব্যাহত রাখব।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামীলীগ সরকার বাংলাদেশ পুলিশকে আধুনিক ও জনবান্ধব করে গড়ে তুলতে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। বাংলাদেশ পুলিশের জনবল ধাপে ধাপে ব্যাপক হারে বাড়ানো হয়েছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে বিশেষায়িত ইউনিট- পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), ট্যুরিস্ট পুলিশ, নৌ পুলিশ, স্পেশাল সিকিউরিটি অ্যান্ড প্রোটেকশন ব্যাটালিয়ন ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ গঠন করেছি। জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ নির্মূলে আমরা ইতোমধ্যে পুলিশ এন্টি টেরোরিজম ইউনিট এবং কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট গঠন করেছি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে পুলিশ স্টাফ কলেজ ও বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিসহ পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারগুলোতে আধুনিক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে। পুলিশ সদস্যদের বৈদেশিক প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রও বাড়ানো হয়েছে। আগামীতে নারী পুলিশের জন্য একটি স্বতন্ত্র ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করা হবে।’ প্রধানমন্ত্রী ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৪৫তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

13 − 13 =