উত্তরখানে স্বেচছাসেবকলীগের সহসভাপতি রাতুলসহ আটক ৮

0
135

অপরাধ বিচিত্রা: রাজধানীর উত্তরখানে রাতের বেলায় ডিসও ইন্টারনেট অফিসে বসে মাদক সেবন, বিক্রি ও সন্দেজনক ভাবে ঞুরাফেরার অভিযোগে স্বেচছাসেবকলীগের উত্তরখান থানার সহসভাপতি রাতুল ও সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ঝিলনসহ ৮জনকে আটক করেছে উত্তরখান থানা পুলিশ।

পুলিশের হাতে আটককৃতরা হলেন- উত্তরখান থানা স্বেচছাসেবকলীগের সহসভাপতি মো: আবুজাফর ওরফে রাতুল (৩১), দলের সাংগঠনিক সম্পাদ শেখ মো: ঝিলন (৩২), মো: সাইফুর রহমান ওরফে সজীব (৩২), মো: নূরে আলম (৩৫) ও শহিদুল ইসলাম (৪৫) ও নিউটন রহমান (৩২)সাইফুল ইসলাম, ও ফকরুল হাসান (৩৫) প্রমুখ।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সোয়া ১০টার দিকে উত্তরখান থানার মাস্টারপাড়া কলাবাগান সুপার মার্কেট ওরফে (ফালুর মার্কেটে) গোপনে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদেরকে আটক করে।

আজ শুক্রবার সকালে জিঞ্জাসাবাদ শেষে ধৃত ৮জন আসামীকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আজ শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে উত্তরখান থানা পুলিশ মাস্টারপাড়া কলাবাগান ফালুর মার্কেটে অভিযান চালিয়ে সজীবের ব্যবহূত মোটরসাইকেলটি জব্দ করেছে।

এদিকে, আজ শুক্রবার ডিএমপির উত্তরখান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: হেলাল উদ্দিন গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি জানান, বৃহস্পতিবার রাতে উত্তরখান থানা পুলিশ গোপনে অভিযান চালিয়ে সন্দেহজনক ভাবে ফুরোফেরা ও মাদকসেবনকালে তাদেরকে আটক করে।এসময় পুলিশ তাদের হেফাজত থেকে এক বোতল খালি ফেন্সিডিল বোতল ও নিষিদ্ধ গাঁজার পুড়িয়া উদ্বার করেন।

এদিকে, উত্তরখান থানা পুলিশের (এএসআই) আল আমিন বলেন, আটককৃত ৮জনকে আজ ননএফআই (প্রসিকিউশন) নং-১৭/২০২০ ধারা-১০০/৮৬ ডিএমপি অধ্যাদেশ আদালতে পাঠানো হয়েছে।তাকে এক প্রশ্ন জবাবে তাকে বললে তাদের কাছে মাদক ছিলনা।কিন্ত একটি ফেন্সিডেলের বোতল পাওয়া তবে কোন মাদক ছিল না।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে উত্তরখান মাস্টারপাড়া কলাবাগান ফালুর মার্কেটে ইন্টারনেট অফিসে তল্লাশী চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়। আজ শুক্রবার বিকেলে ৩টার দিকে ওই মার্কেটের পাশ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি মোটরসাইকেলটি পুলিশ জব্দ করেছে।ডিস ও ইন্টারনেট অফিসটি স্বেচছাসেবকলীগ নেতা রাতুল, ঝিলন ও ফারুকের ব্যবসা প্রতিষ্টান বলে জানা গেছে।

এবিষয়ে জানতে আজ উক্ত মামলার বাদী (এসআই) আব্বাস আলীর সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।

পুলিশের হাতে আটককৃতদের মধ্যে রয়েছেন মামলার প্রধান আসামী- সাইদুর ইসলাম ভুঁইয়া (৩১), পিতা মৃত ফজলুল হক,মাতা সালেহা বেগম, মো: আবুজাফর ওরফে রাতুল (৩১), পিতা হাজী আবুল কাশেম,মাতা রেহানা বেগম, মো: সাইফুর রহমান পিতা সমিজ উদ্দিন,মাতা রহিমা বেগম, মো: নূরে আলম ( ) পিতা ফিরোজ মিয়া মাতা সামছুন্নাহার , শেখ মো: ঝিলন ( ৩২) পিতা মো: নাজিম উদ্দিন মাতা রিনা বেগম, নিউটন রহমান (৩২) পিতা মোখলেছুর রহমান মাতা মনোয়ারা বেগম,ফকরুল হাসান (৩৫) পিতা হেলাল উদ্দিন মাতা মেহেরুননেছা ও সাইফুল ইসলাম ওরফে সজীব ( ৩২), পিতা মৃত রফিজ উদ্দিন মাতা লুৎফুন নেছা।

এদের মধ্যে উত্তরখান থানা স্বেচছাসেবকলীগের সহসভাপতি দলের সাংগঠনিক সম্পাদ শেখ মো: ঝিলন (৩২) ও স্বেচছাসেবকলীগের সহসভাপতি মো: আবুজাফর ওরফে রাতুল।এদের বাড়ি উত্তরখান মাস্টারপাড়া কলাবাগান এবং উত্তরখানের মাদারবাড়ি এলাকায় বলে জানা গেছে।

উত্তরখান থানা পুলিশ,মামলার সুত্র ও এলাকাবাসিদের অভিযোগে জানা যায়, উত্তরখানের মাস্টারবাড়ি এলাকায় বিগত ৭/৮ বছর আগে স্থানীয় ভেন্ডার শাহীন এর বাসার কাজের মেয়েকে ধর্ষন করে বর্তমানে পুলিশের হাতে আটক স্বেচছাসেবকলীগ নেতা রাতুল ও তার সহযোগী ঝিলন। তৎকালীন সময়ে উত্তরখান থানার এসএসআই মো: হাফিজ উদ্দিন তাদের দুইজনকে আটক করেছিল। ওই ধর্ষন মামলায় দীর্ঘ ৫ মাস জেল খাটার পর জামিনে বের হন রাতুল ও ঝিলন।

অপর দিকে, ৬ বছর আগে উত্তরখানের মাস্টারবাড়ি এলাকায় ব্যবসায়ী আতাউর রহমানের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ওই মামলায় আটক করা হয়েছিল স্বেচছাসেবকলীগ নেতা ঝিলনকে। উত্তরখান থানার তৎকালীন এসআই মো: ইজ্জত আলী তাকে আটক করে।দীর্ঘ ৬ মাস জেল খেটে জামিনে বের হন ঝিলন।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eight + 6 =