করোনায় বন্ধ থাকা কলেজ অধ্যক্ষের আপ্যায়ন বিল ৪০ হাজার টাকা!

0
172

করোনা সংক্রমন এড়ানোর নিষেধাজ্ঞায় লকডাউনের মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহ বন্ধ থাকা কালীন সময়ে পটুয়াখালীর কলাপাড়ার এক কলেজ অধ্যক্ষ’র ৪০ হাজার টাকার আপ্যায়ন বিলে বিস্মিত হয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় সরকারী মোজাহার উদ্দীন বিশ্বাস কলেজ’র ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এমন বিল তৈরী করে তা পাশ করার জন্য সম্প্রতি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সভাপতি’র কাছে প্রেরন করেছেন। আর অধ্যক্ষ’র ওই বিলের সাথে কোন ভাউচার না থাকায় তা ফেরৎ পাঠিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি কলাপাড়া ইউএনও।  তবে ৪০ হাজার টাকার ওই আপ্যায়ন বিল’র সূত্র ধরে প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক হিসাব নিকাশ পরীক্ষায় বেড়িয়ে পড়তে পারে বিতর্কিত অধ্যক্ষ’র থলের কালো বিড়াল, এমন দাবী কলেজ সংশ্লিষ্টদের। দেশের বালিশ কান্ড, পর্দা কান্ড’র পর অধ্যক্ষ’র এ আপ্যায়ন বিল তেমনই একটি পুকুর চুরির চেষ্টা।

দানবীর মোজাহার উদ্দীন বিশ্বাস কলাপাড়া উপকূলীয় এলাকার শিক্ষায় পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য তাঁর নিজ নামে ১৯৭০ সালে মোজাহার উদ্দীন বিশ্বাস কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। কলেজে অধ্যয়নরত মেধাবী শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার আর্থিক সহায়তার জন্য কলেজ প্রতিষ্ঠাতার স্ত্রী কর্পূরন্নেছা তৎকালীন সময়ে ৫০ হাজার টাকার একটি তহবিল গঠন করে দেন। ১৯৮৪ সালে কলেজটিকে সরকার এমপিও তালিকা ভূক্ত করেন।

শুরুতে এটি উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ থাকলেও পরবর্তীতে বিএ, বিকম. বিএসসি কোর্স চালু হয় এ কলেজে। এরপর বাংলাদেশ উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন কলেজটিতে উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক কোর্স চালু হয়। ২০১৩ সালে কলেজটিতে বাংলা, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, হিসাব বিজ্ঞান ও সমাজ বিজ্ঞান বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু হয়। ২০১৮ সালে কলেজটিকে জাতীয় করন করা হয়।  বর্তমানে কলেজটিতে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে প্রায় ৭৫০, স্নাতক শ্রেনীতে ৫০০ এবং অনার্স পর্যায়ে ৩০০ শিক্ষার্থী রয়েছে। 

এছাড়া উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে মাধ্যমিক ও স্নাতক পর্যায়ের বিভিন্ন সেমিষ্টারে কয়েক শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। বিভিন্ন শিক্ষা বর্ষে শিক্ষার্থীদের ভর্তি ও ফরম পূরনের ফি বাবদ আদায়কৃত অর্থের কোন রশিদ সরবরাহ করা হয়নি শিক্ষার্থীদের।  এখাতে আদায়কৃত টাকার যথাযথ হিসেব নেই প্রতিষ্ঠানটিতে।  কর্পূরন্নেছা তহবিলের আয় ব্যয়ের নেই কোন হিসাব।  সরকারী কিংবা ব্যক্তি পর্যায়ে দেয়া অনুদান’র কোন হিসেব নেই। অভিযোগ উঠেছে কলেজটির আর্থিক বিষয়ের স্বচ্ছতা নিয়ে।  যখন যে অধ্যক্ষ পদে দায়িত্বে ছিলেন তিনি কলেজ পরিচালনা পর্ষদকে ম্যানেজ করে অর্থ লোপাটে ছিলেন সিদ্ধ হস্ত। 

কলেজ ক্যাম্পাসে মসজিদ নির্মানের অনুদানের টাকা নিয়েও চলছে নানা গুঞ্জন।  এসব হিসেবের গড়মিল থেকে নিজেকে রক্ষা করতে এবং যাতে অধ্যক্ষ’র থলের কালো বিড়াল বেরিয়ে না আসে সে জন্য কলেজটির আর্থিক সকল হিসাব সংক্রান্ত খাতা, নথিপত্র ও ভাউচার চুরি হয়েছে মর্মে কলাপাড়া থানায় দু’বার সাধারন ডায়েরী করা হয়।

এদিকে সরকারী মোজাহার উদ্দীন বিশ্বাস কলেজে রহস্যজনক কারণে অভ্যন্তরীন আয় ব্যয়ের হিসাব নিরীক্ষা বন্ধ রয়েছে দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে।  অডিট কমিটি বলেও কলেজে কখনও কিছু ছিলনা।  ২০০৩ সালে একবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে অডিট করার কথা জানা গেছে। তবে তা ম্যানেজ করে বন্ধ করে দেয়া হয় বলে একটি সূত্র জানায়।  কলেজটিতে বর্তমানে এমপিও ভূক্ত শিক্ষক কর্মচারীর সংখ্যা রয়েছে ৫২ জন।

নন এমপিও ভুক্ত শিক্ষক কর্মচারী সংখ্যা ৭৯ জন। করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের পক্ষ  থেকে নন এমপিও ভুক্ত কলেজ শিক্ষকদের কলেজ কর্তৃপক্ষকে  দু’মাসের বেতন দেয়ার নির্দেশনা থাকলেও কলেজ থেকে ঈদের পূর্বে তাদের কোন বেতন দেয়া হয়নি।

বেতন না পাওয়া ভুক্তভোগীদের মানবেতর জীবনযাপনের চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠে আসলেও কোন প্রতিকার মেলেনি। এব্যাপারে তারা প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ইউএনও বরাবর আবেদনের পরে, বিষয় দেখবেন বলে ইউএনও তাদের আশ্বস্ত করেন।

মোজাহার উদ্দীন বিশ্বাস কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহিদুল আলম বলেন, ৪০ হাজার টাকার ওই বিল ফেব্রুয়ারী- মে ২০২০ চার মাসের। যা উত্তোলন করা হয়নি। এর মধ্যে বিদ্যুৎ বিল, টেলিফোন বিল, বিশিষ্ট জনদের আপ্যায়ন খরচ রয়েছে। এটি মাসিক ১০ হাজার টাকা খরচ সম্বলিত কলেজ পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদিত। এ সংক্রান্ত রেজুলেশন আছে।

অধ্যক্ষ শহিদুল আলম আরও বলেন, সরকারী ঘোষণার পর কলেজটির পরিচালনা পর্ষদ বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ইউএনও আমার স্বাক্ষরের সাথে প্রতিস্বাক্ষর করবেন, এজন্য তার কাছে পাঠানো হয়েছে। তবে কলাপাড়ার ইউএনও কে? হাসনাত সাহেব না শাহআলম?

কলাপাড়া ইউএনও আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক বলেন, ’করোনার বন্ধের মধ্যে অধ্যক্ষ’র ৪০ হাজার টাকার বিলের সাথে কোন ভাউচার না থাকায় এটি ফেরত পাঠানো হয়েছে। এছাড়া কলেজের নন এমপিও শিক্ষকদের বেতন সহ অপর বিষয় গুলো দেখা হচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × 2 =