সুদীর্ঘ আঠার বছর পর গাজীপুর মহানগর ১৯ নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হওয়ায় এলাকাবাসী আনন্দিত

0
96

সিরাজুল ইসলাম: গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের সুযোগ্য সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. আজমত উল্ল্যাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক নগর পিতা মানবিক মেয়র আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম ওয়ার্ডের সকল স্তরের নেতৃবৃন্দের সাথে পরামর্শ করে, আগামী দিনে দলকে সু-সংগঠিত করার জন্যই এই আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেছেন। যে সকল নেতাদের দীর্ঘ দিনের ত্যাগ, দলের প্রতি অবদান ও জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রয়েছে তাদের দিয়েই উক্ত আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও জননেত্রীর শেখ হাসিনার ভিশন ২০৪১ কে সামনে রেখে মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সাহেব অতন্দ্র প্রহরীর মত কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা তাদের সহযোগী হিসেবে গাজীপুর মহানগরের প্রতি ওয়ার্ডের মাদক, চাঁদাবাজি, ও ধর্ষণ মুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা করে সামাজিক ন্যয় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে বদ্ধ পরিকর। আমরা দীর্ঘদিন আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলাম। ভবিষ্যতেও থাকবো ইনশা আল্লাহ। দলের যে কোন দূর্দিনে আমাদের ওয়ার্ডের নেতা ও কর্মীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে জামাত ও বিএনপির  যে কোন দেশদ্রোহী ও ষড়যন্ত্রমূলক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকবো। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে আমৃত্যু আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকবো। তিনি বলেন আগামী ৯০ দিনের মধ্যে ৩৭ সদস্য বিশিষ্ট ইউনিট কমিটি গঠন করে একটি শক্তিশালী ও পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড কমিটি গঠন করবো।

১৯ নং ওয়ার্ড নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন আমরা সকলেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক ও দেশ রত্ম মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শের ভ্যানগার্ড সুতরাং দলে পদ পদবী আমাদের জন্য মুখ্য বিষয় নয়। আমরা বঙ্গবন্ধুর কর্মী এটাই আমাদের পরিচয়। তাই সকলে আওয়ামীলীগের কর্মী হিসেবে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনে ঐক্য বদ্ধ হয়ে কাজ করি।

গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মানিত সাধারণ সম্পাদক একজন সুযোগ্য নগর পিতা হিসেবে প্রমাণ দিয়েছেন। এলাকার উন্নয়নে তিনি দিনরাত কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। যে কোন সমস্যায় তিনি নেতা ও কর্মীদের পাশে থাকেন। এক কথায় তিনি মহানগর কর্মীদের প্রাণ এবং সভাপতি আজমত উল্ল্যাহ খান আমাদের অভিভাবক তার দীর্ঘ ৫০ বছরের পরিচ্ছন্ন রাজনীতি ও দেশ প্রেম ইতিহাসে বিরল।

আমরা এই দুই নেতার সহযাত্রী হিসেবে গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের সকল নেতা কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ। পদ বাণিজ্য ও নিজস্ব কর্মীদের দিয়ে কমিটি গঠন সম্পর্কে বলেন এগুলো গুজব ও ভিত্তিহীন। আমাদের মহানগরের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আওয়ামী পরিবারের অভিভাবক। আমরা তাদের সন্তান তুল্য।

দীর্ঘ দিনের দলীয় কর্মকান্ডে মূল্যায়নের ভিত্তিতে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই সকল কথা বলে যারা দলে বিভ্রান্তি তৈরী করতে চান তিনি তাদেরকে সঠিক পথে ফিরে আসার আহ্বায়ক জানান। আ: লতিফ তালুকদার ১৯৬৩ সালে দেশীপাড়া সম্ভ্রান্ত তালুকদার পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন।

তিনি দেশীপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা ও রানী বিলাসমণি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক শিক্ষা লাভ করেন। তিনি দেশীপাড়া তালুকদার পাড়া জামে মসজিদের সহ-সভাপতি। দেশীপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ বারের নির্বাচিত সভাপতি ও শালনা দাখিল সিনিয়র মাদ্রাসার গভ:বডির সদস্য হিসাবে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করেন।

জনাব ইসরাফিল আলম টিক্কা খান ১৯৭১ সালে দক্ষিণ সালনায় জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি সাবেক বাসন ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। সাবেক বাসন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক সদর থানা কৃষকলীগের সদস্য, ১৯ নং ওয়ার্ড শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মহানগর শ্রমিকলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হিসেবে দীর্ঘ দিন সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করিয়াছেন।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven − 4 =