রেলওয়ের জমি দখল করে মিজানুর রহমান মুকুলের রমরমা বানিজ্য

0
175

জেমস্ এ কে হামীম: রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকার দুই কিলোমিটার এলাকার রেলওয়ের জমি দখল করে গড়ে তোলা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পর ফের দখল শুরু হয়েছে। উচ্ছেদ করা জমিতে আবারও অস্থায়ী দোকানপাট নির্মাণ শুরু করেছে দখলদাররা। গত কয়েক মাস আগে এই জমিতে অবৈধভাবে দখল করে গড়ে তোলা এক হাজার ২০০ স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। কর্তৃপক্ষের তথ্যমতে, খিলক্ষেত এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে রেলওয়ের জমি অবৈধভাবে দখল করে দোকানপাটসহ বিভিন্ন ধরনের স্থাপনা নির্মাণ করেছে প্রভাবশালীরা। রেলওয়ে এয়ার পোট স্টেশন থেকে শুরু করে  ছোট-বড় অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত করা হয়। পরে এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ এবং রেলওয়ের জমি দখলমুক্ত করতে অভিযান চালায় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। উচ্ছেদ করা জমিতে আবারও দোকান নির্মাণ হচ্ছে এই অভিযানের ২০ দিন না হতে খিলক্ষেত এলাকায় উচ্ছেদ করা জমিতে ফের অবৈধ দোকান-পাট নির্মাণ করে বাজার  শুরু হয়েছে। অভিযোগ পাওয়া গেছে, যুবলীগের মিজানুর রহমান মুকুলের  নামে।

স্থানীয় এক ব্যক্তি ২০০৯ সাল থেকে  এলাকায় রেলওয়ের জমি দখল করে কয়েকশ’ দোকানপাট তৈরি করে বাজার গড়ে তোলেন। ছোট-বড় এসব দোকানের প্রতিটি থেকে জামানত হিসেবে চার-পাঁচ লাখ টাকাসহ প্রতি মাসে ভাড়া আদায় করা হতো। এভাবেই রেলের জমি বছরের পর বছর দখল করে তিনি হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি কেটি টাকা।

দোকানপাটসহ সব অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। পরে রেলের এসব জমি দখল করে ফের দোকানপাট নির্মাণ শুরু করেন মিজানুর রহমান মুকুল। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে মিজানুর রহমান মুকুল বলেন, ‘আমি রেলের জমি লিজ নিয়ে আছি আপনি আসেন চা খাব। বাংলাদেশ রেলওয়ের ভূ-প্রধান-সম্পত্তি কর্মকর্তা  বলেন, ‘উচ্ছেদ অভিযান রেলওয়ের চলমান প্রক্রিয়া।

উচ্ছেদ করে চলে আসার পর অবৈধ দখলদাররা আবারও নতুন করে স্থাপনা নির্মাণের চেষ্টা করলে পুনরায় অভিযান পরিচালনা করে ভেঙে দেওয়া হবে। আমি বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তাকে (ঢাকা) এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলবো।’ ৃ

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven + four =