রাষ্ট্রপতি পদকে ভ‚ষিত সংগঠনটি কাজ করছে ডিজিটাল টোলারবাগ গঠনে

0
254

শহীদুল্লাহ শাকীল: বিগত সময়ে কাজের স্বীকৃতি হিসেবে রাষ্ট্রপতি পদক পাওয়া ‘টোলারবাগ সমাজকল্যাণ সংগঠনটি’ কাজ করছে আধুনিক ও ডিজিটাল টোলারবাগ গঠনে। কাজে সহায়তা করছেন মিরপুর ১৪ আসনের এমপি মো: আসলামুল হক। কাজ বাস্তবায়ন করছেন টোলারবাগ সমাজকল্যাণ সংগঠনের সভাপতি আব্দুস সাত্তার রফিক ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: লুৎফুর রহমানের নেতৃত্বে একঝাঁক সমাজ কর্মী। ২৮ ফেব্রæয়ারি রাজধানীর মিরপুর ১ নম্বর সেকশনের টোলারবাগ সমাজকল্যাণ সংগঠনের অফিসে এ সব কথা বলেন, আলহাজ্ব মো: লুৎফুর রহমান। ঠেেনর প্রতি সব সময় আমার সহযোগিতা থাকবে। সরেজমিন অনুসন্ধানে জানাগেছে, ১৯৯৪ সালে প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটির প্রায় সোয়া লাখ বাসিন্দার উন্নয়ন ও ডিজিটাল সমাজ গঠনে বিগত সময়ে ব্যাপক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। সভাপতি-আব্দুস সাত্তার রফিক ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব ব্রæয়ারি ২০২০ ক্ষমতা গ্রহনের পর প্রায় ৪ কোটি টাকা প্রকল্প ব্যয়ে সমাজ কল্যাণের নিজস্ব জমিতে ৭ তলা ভবনের কাজ শুরু করে ৪ তলা প্রায় কমপ্লিট করেছেন। কহয়েছে সিসি ক্যামেরার আওতায়। টোলারবাগের ৩টি গেটে ও ভেতরে মোট ৪৭ জন নিরস্ত্র নিরাপত্তা কর্মী পাহারা দেওয়ার পাশাপাশি বাসিন্দাদের অতিরিক্ত নিরাপত্তার জন্য নিজস্ব অর্থায়নে স্বশস্ত্র ১২ জন আনছার মোতায়েনের জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েঠনের সদস্যভ‚ক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া সংগনের অর্থব্যয় তদারকিতে এলাকার মুরব্বিদের দিয়ে করা হয়েছে অডিট কমিটি। সংগঠনের সকল কার্যক্রম পর্যবেক্ষণে একটি ওয়েব সাইট খোলা হয়েছে। এলাকার প্রায় সাড়ে ৪ হাজার বাড়ি ও ফ্ল্যাটের হোল্ডিং নম্বর সহজিকরণ করতে হোল্ডিং নম্বর পূন: বিন্যাসের জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া এলাকার সন্ত্রাসকে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করা হয়েছে।

টোলারবাগে প্রবেশে দুটি প্রধান সড়কের ফুটপাত থেকে অস্থায়ী দোকানপাট উচ্ছেদ করে সড়কে লাগানো হয়েছে ফুলের গাছ। বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম চালু আছে। আছে সব জাতীয় দিবস পালনে কার্যকর উদ্যোগ। এলাকার মৃত ব্যক্তিদের বিনামূল্যে দাফন-কাফন ও ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে টোলারবাগ সমাজ কল্যাণ।

মেডিসিন কর্ণারের রুহুল আমিন অপরাধ বিচিত্রাকে বলেন, ডিজিটাল টোলারবাগে রাস্তা-ঘাট স্যুয়ারেজ লাইন পরিছন্ন। রয়েছে রেই রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল। ভেতরে কোনো মাস্তানী নেই। নেই কোনো পানির কষ্ট, মাদকসেবীরা এলাকায় ঢোকেনা।

বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনষ্টিটিউটের , বর্তমান কমিটির ওপর আমি এ কারনে খুশি যে, তাঁরা পরস্পরের সঙ্গে বন্ধন রক্ষা করেছে। করোনা কালিন এলাকার মানুষের সেবা দিতে গিয়ে সংগঠণের পরিচালনা পরিষদের অধিকাংশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

উপদেষ্টা আহম্মদ উল্লাহ ব্যাপারী অপরাধ বিচিত্রাকে বলেন, বর্তমান কমিটির ভাল কাজের প্রতি ঈর্শান্নিত হয়ে একটি মহল অপপ্রচার চালাচ্ছে। ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রনেতা ও কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦

মো: লুৎফুর রহমানের বিরুদ্ধে কাজ করছে। অথচ আলহাজ¦ মো: লুৎফুর রহমান করোনাকালিন সময়ে সংগঠনের পাশাপশি নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এলাকার গরীব অসহায়দের সাহায্য, চিকিৎসা ও খাবার বিতরন করেছেন।

তবে এলাকার কয়েকজন জানান, এলাকায় ২ একটি সড়ক কিছুটা সরু হওয়ায় যাতায়াতে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। এ ছাড়া ভেতরে কোনো খেলার মাঠ নেই। এ বিষয়ে কমিটির সভাপতি আব্দুস সাত্তার রফিক বলেন, এলাকায় প্রবেশের প্রধান সড়কটি বড় করার জন্য আমরা গণপূর্ত অধিদপ্তরে আবেদন করেছি। অন্যান্য সড়ক বড় করার কার্যকর উদ্যোগ গ্রহন করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven + nine =