যৌন নির্যাতনে অভিযুক্ত মাদরাসা প্রধান বহাল তবিয়তে

0
309

নিজস্ব প্রতিবেদক: বি বাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার কৃষ্ণনগর গ্রামের কৃষ্ণনগর আশরাফুল উলূম মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা রবিউল্লাহ’র বিরুদ্ধে একাধিকবার ছাত্র বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সংশ্লিষ্ট মহল তাকে অব্যাহতি দেওয়া পরেও কতিপয় অসৎ প্রভাবশালী ব্যক্তির পৃষ্ঠপোষকতায় পুনরায় দায়িত্বে ফিরে এসেছেন। এতে এলাকাবাসী ও অভিভাবকদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় এবং তাকে চাকুরী থেকে অব্যাহতি দেয়ার জোর দাবী জানাচ্ছে। সূত্র মতে জানাযায়, কৃষ্ণনগর আশরাফুল উলূম মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা রবিউল্লাহ সাহেবের বিরুদ্ধে এদারায়ে তা’লিমিয়্যাহ (ক্বাওমি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড ব্রাক্ষণবাড়িয়া) অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ায় বিগত ১৫/০৩/২০২০ ইং তারিখ এদারায়ে তা’লিমিয়্যা কার্যালয়েতে অভিযোগ শুনানীর সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত বোর্ডের সদস্যবৃন্ধের উপস্থিাততে অভিযোগকারীগণ ও অভিযুক্ত ব্যক্তির শুনানির পূনর্বর্ণনার পরিপ্রেক্ষিতে এবং অভিযুক্ত ব্যক্তির মৌখিক এবং লিখিতভাবে অভিযোগ স্বীকার করার ফলে অভিযুক্ত মাওলানা রবিউল্লাহকে সর্বসম্মতিক্রমে কৃষ্ণনগর মাদ্রাসা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হইল। তাই তিনি উক্ত মাদ্রাসার কোন কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করিতে পারিবেন না।

যৌন নির্যাতনকারী রবিউল্লাহ ক্বাওমি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড ব্রাক্ষণবাড়িয়ার কর্তৃপক্ষের নিকট তার স্বীকারুক্তিটি হলো- আমি মাওলানা রবিউল্লাহ কৃষ্ণনগর আশরাফুল উলুম মাদ্রাসাতে দীর্ঘ দিন যাবত খেদমতে নিয়োজিত আছি।

অত্যন্ত লজ্জিত ও শরমিন্দা হয়ে আপনাদের নিকট আকুল আবেদন করতেছি যে, হযত শয়তান মালাউনের ধোকায় পরে আমি ছেলের খেদমতের সুযোগে যাই কিছু ঘটিয়েছি, আল্লাহর ওয়াস্তে আলেমের ইজ্জত রক্ষার্থে আমাকে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে মাফ করে দিয়ে দ্বিনের খেদমতের সুযোগ দানে বার্ধিত করিবেন।

অতএব, হযরত আমি ওয়াদা করতেছি আমার জীবনে আর এ ধরনের ত্রæটি বিচ্যুতি আর ঘটাবনা। এ ব্যপারে আল্লাহর শপথ করে বলছি, ইনশাআল্লাহ ওয়াদা অটুট থাকবে।

মাদরাসার সুনাম রক্ষার্থে যৌন নির্যাতনকারী রবিউল্লাহর দ্রæত অপসারণ দাবী করেছে এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও উর্ধ্বতন মহলের সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাকাবাসী ও অভিভাবকগণ।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

two + 12 =