খাদ্যে ভেজাল রোধে সকলের পক্ষের সততা লাগবে

0
1251

জনপ্রিয় একটি অভিযানের নাম হলো খাদ্যে ভেজাল বিরোধী অভিযান। আসছে রমজান মাস। কিছুদিনের মধ্যেই শুরু হবে এই ভেজাল বিরোধী অভিযান কখনো ভিন্ন ভিন্ন আবার কখনো একত্রে খাদ্যে ভেজাল রোধে অভিযান চালান বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই), ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) ও বাংলাদেশ পুলিশ। জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন -এর সম্মানীত সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক মোঃআজিজুল হক সাহেব বলেন, দিন দিন বিস্তৃত হচ্ছে ভেজালের গণ্ডি। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে ভেজাল বিরোধী অভিযানে যারা যান তাদের মধ্যে বা তাদের নিয়োগে ভেজাল নেই তো? কারণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দিয়ে তাদের মাঠে নামাচ্ছি আমরা। তাদের হাতেই নির্ভর কাছে অভিযানের সফলতা, আমাদের নিরাপদ খাদ্য এবং খাদ্য উদ্যোক্তাদের সম্পৃক্ততা।

ভেজালের ধরনেও এসেছে ভিন্নতা। যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন প্রযুক্তি। চকচকে চালের নামে চালেও মেশানো হচ্ছে বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্য আর্সেনিক, ক্রোমিয়াম, ইউরিয়া সার, মোম।

তাছাড়া সাধারণ মোটা চাল অতিরিক্ত ছাঁটাই করে চিকন করে দেয়া হচ্ছে ধোঁকা। ডালে মেশানো হচ্ছে কাঠের গুঁড়া, ইটের গুঁড়া, বালি ও রং। ভেজাল হচ্ছে লবণও। এতে মেশানো হচ্ছে সিসা, বালি, গুঁড়া পাথর, কাকর ও রং।

হলুদের গুঁড়ার সঙ্গে মিশছে সিসা, ডালের গুঁড়া, কাঠের গুঁড়া, ইটের গুঁড়া, মটরের গুঁড়া, কাপড়ের রং, ক্ষার জাতীয় পদার্থ চুন ও সোডা, চালের কুঁড়া, কাউন ধান ও পচা মরিচের গুঁড়া। আর মরিচের গুঁড়ার সঙ্গে মেশানো হচ্ছে ইটের গুঁড়া, ডালের গুঁড়া, চুন ও সোডা, চালের কুঁড়া, কাউন ধান, পচা মরিচের গুঁড়া, টেক্সটাইলের রং, লোহার মরিচা, আটা, ময়দা ও পচা হলুদ।

আসল ডিমের সঙ্গে বাজারে রয়েছে নকল ডিমও। আবার আসল ডিমও ভেজাল হচ্ছে ক্রোমিয়াম, সিসা ও রংয়ের মিশ্রণে। ধনিয়ার গুঁড়া ভেজাল হচ্ছে কাঠের গুঁড়া, রং, নষ্ট সেমাই, সমিলের কাঠের ভুসি, আটা ও তেজপাতায়।

পোস্তাদানায় মেশানো হচ্ছে সুজি। তাছাড়া বিভিন্ন মশলায় ভুসি, কাঠের গুড়া, বালি ও ইটের গুড়া তো থাকছেই। ভেজাল হচ্ছে তেল জাতীয় তরল খাদ্যপণ্যও। সয়াবিন তেল ভেজাল হচ্ছে রং মেশানো ডাল, ডালডা, অপরিশোধিত পামঅয়েল, ইঞ্জিনের তেল, তিল, গর্জন ও ব্যারনের তেলে। ভেজাল ঘিয়ে পাওয়া গেছে বিভিন্ন রং, সয়াবিন ও পামঅয়েল। তরল দুধ ভেজালে বা

নকল দুধ তৈরিতে ব্যবহার হচ্ছে শ্যাম্পু, সাবান, বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্য, ফরমালিন, সাদা পাউডার, বেকিং পাউডার, ছানা, স্টার্চ, মাস্টার্ড অয়েল, ক্যালসিয়াম বাই কার্বনেট, দুধের মতো দেখতে সুগন্ধি।

মধু তৈরি বা ভেজাল হচ্ছে চিনি, স্যাকারিন, পানি, রং ও বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্যে। কনডেন্স মিল্ক ভেজাল হচ্ছে চালকুমড়া, পামঅয়েল, ভেজিটেবল অয়েল ও ক্যামিকেলে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

seven + 13 =