দুর্নীতির অপর নাম রাজউক

0
431

ঢাকা বসবাসের অনুপযোগি হয়ে পড়ছে। নিয়ন্ত্রনহীন অনিয়মিত বহুতল ভবন গড়ে ওঠছে একের পর এক। অভিযোগ রয়েছে ভবন মালিকরা এক শ্রেণীর দুর্নীতিবাজ ইমারত পরিদর্শক ও অথারাইজড অফিসারকে ম্যানেজ করে অনিয়মত এসব বহুতল ভবন গড়ে তুলছেন। ভবনের সামনে তিন ফুট রাস্তাও নেই এমন স্থানে ভবন গড়ে ওঠছে বহুতল ভবন। রাজউক থেকে নকশা পাশের আগে জমির ছাড়পত্র নিতে হয়। এই ছাড়পত্র নিতে জমির মালিককে ঘুড়তে হয় দিনের পর দিন। নির্ধারিত হারে উৎকোচ না দিলে জমির ছাড়পত্র মিলছে না বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। নকশা পাশের বেলায়ও একই কায়দায় জুলুম চলছে। জমির আয়তন ভেদে টাকা না দিলে কোন না কোন অজুহাতে নকশা পাশ করা হচ্ছে না। ঢাকা শহরে এক সময় দশ হাজার ভবনের একটি তালিকা তৈরি করেছে রাজউক। এসব ভবন কোনটি রাজউকের নকশা ছাড়া নির্মিত কোনটি আংশিক অনিয়ম করে নির্মিত। এসব ভবনের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু অদৃশ্য শক্তির কারণে অভিযান থেমে যায়। এর পর কয়েক বছর অতিক্রম হয়। গড়ে ওঠে আরও অনেক ভবন। অনিয়মত ভবনগুলোতে অভিযানে গেলে বা ইমারত পরিদর্শক ভবন মালিকের কাছে নকশা দেখতে চাইলে তা দেখাচ্ছেন না বলে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। অথচ ইমারত নির্মান আইন অনুযায়ী কোন বহুতল ভবন নির্মানের সময় নকশার কপি সাইটে সংরক্ষন করতে হবে এবং রাজউকের কোন কর্মকর্তা দেখতে চাইলে তা দেখাতে বাধ্য।

রাজউকের জোন-৭ এ একই দিনে পর পর আটটি ভবনে ইমারত পরিদর্শক পরিদর্শনে গেলে নকশা দেখানো হয়নি এমন অভিযোগের শেষ নেই। এখন প্রশ্ন জাগে এসব ভবনে রাজউক থেকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে কি না।

আবার নকশা দেখাতে ব্যর্থ ভবন মালিকদেরকে রাজউক থেকে নকশা দাখিলের একটি নোটিশ দিয়েই রাজউক তার দায়িত্ব শেষ করে ফেলছে। এভাবে চলছে দিনের পর দিন।

ভবন নির্মানের পনের দিন আগে ভবনের সামনে তথ্য বোর্ড টাঙানোর নির্দেশনা রয়েছে যাতে ভবন মালিকের নাম, ভবনের হোল্ডিং নম্বর রাজউকের নকশা নম্বর ইত্যাদি উল্লেখ থাকতে হবে। কিন্ত বাস্তবে অনেক ভবন মালিকরা নির্মানাধীন এসব ভবনের সামনে কোন তথ্য বোর্ড রাখছেন না।

ছয় তলার অনুমোদন নিয়ে সাত তলা, চারপাশে সেটব্যাক না ছেড়ে ভবন নির্মান ইত্যাদি কারণে ঢাকা একটি ঝুঁকিপূর্ণ শহরে পরিণত হয়েছে। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে রাজউকে বিরাজিত অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 + sixteen =