বাধ্যতামূলক টিকার বিরুদ্ধে নিউজিল্যান্ডে ব্যাপক বিক্ষোভ

0
167

নিউজিল্যান্ডে বাধ্যতামূলক টিকা ও লকডাউনের বিরুদ্ধে হাজার হাজার মানুষ দেশটির পার্লামেন্ট ভবনের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করেছে। ফলে পার্লামেন্ট ভবনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে সরকার। মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট ভবনের দুটি প্রবেশপথ ছাড়া বাকি সবগুলোই মঙ্গলবার বন্ধ করে দেওয়া হয়। নজিরবিহীন পুলিশ ও নিরাপত্তাকর্মীদের ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয়েছে। কারণ বেশিরভাগ বিক্ষোভকারী মাস্ক ছাড়াই সেন্ট্রাল ওয়েলিংটনের মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে মিছিল করছে। পাশাপাশি সংসদের বাইরে জমায়েত হচ্ছে বিক্ষোভকারীরা।

স্বাধীনতা চাই লেখা প্লেকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করছে তারা। এসময় বাধ্যতামূলক টিকার বিরুদ্ধে ও বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার জন্য স্লোগান দিতে থাকে তারা।

পার্লামেন্ট ভবনের সামনে এক বিক্ষোভকারী বলেন, কোনো কিছুর জন্য আমাকে জোর করা যাবে না এবং আমার শরীরে আমি যা চাই না তা নিতে আমাকে বাধ্য করাও যাবে না।

তিনি বলেন, আমি আমার স্বাধীনতা ফিরে পেতে চাই। ২০১৮ সালের আগে আমরা যেরকম ছিলাম সেরকম পরিবেশ চাই।

নিউজিল্যান্ড বর্তমানে করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট মোকাবিলায় লড়াই করছে। তাই দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডার্ন লকডাউনের পরিবর্তে টিকা কার্যক্রম বাড়িয়ে করোনার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতি জোর দিচ্ছেন।

আর্ডার্ন গত মাসে ঘোষণা করেন, স্বাস্থ্য ও সেবাখাতের শিক্ষক ও কর্মীদের করোনা প্রতিরোধী টিকার দুই ডোজ নিতে হবে। এসময় প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ৯০ শতাংশ টিকা নিলেই তিনি স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

বিশ্বের যে কয়টি দেশে করোনার সংক্রমণ কম নিউজিল্যান্ড এখনো তাদের মধ্যে একটি। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৮ হাজারের কম মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে আর মৃত্যু হয়েছে ৩২ জনের। মঙ্গলবার নতুন করে দেশটিতে ১২৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এছাড়া নিউজিল্যান্ডের প্রায় ৮০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ টিকা নিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 + seventeen =