টঙ্গীতে কথিত নারী সাংবাদিকের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী তার খুটির জোর কোথায় ?

0
431

গাজীপুর মহানগর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন ৪৫ নং ওয়ার্ড পূর্ব আরিচপুরের সাধারণ মানুষ কথিত নারী সাংবাদিকের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। কে এই কথিত নারী সাংবাদিক কি তার পরিচয়? কথিত নারী সাংবাদিক মোসাঃ শামীমা খানম বেবী ওরফে প্রতিবন্ধী বেবী। গাজীপুর জেলার টঙ্গী পূর্ব থানার পূর্ব আরিচপুর নদীরপাড় মৃত ডাক্তার আলী আকবরের কন্যা। মৃত ডাক্তার আলী আকবর জামালপুর জেলার ইসলাম থানার বাসিন্দা দীর্ঘদিন আগে পেটের দায়ে টঙ্গী আসে কাজের উদ্দেশ্যে। এখানে এসে একটি ভাড়া নিয়ে ঔষধের দোকান পরিচালনা করে জীবিকা নির্বাহ করে। কথিত নারী সাংবাদিকেরা ১৮ ভাই বোন, ১২ বোন আর ৬ ভাই। কথিত নারী সাংবাদিকের সকল ভাই মাদক ছিনতাই ডাকাতি মামলা সহ একাধিক মামলার আসামী। তার বড় ভাই ডাক্তার সোহেল কিছু দিন আগে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের হাতে ইয়াবা ট্যাবলেট সহ আটক হয়। তার ছোট ভাই ডলার ও শিশিরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। কথিত নারী সাংবাদিক শামীমা খানম বেবী ওরফে প্রতিবন্ধী বেবী তার ভাইদের সমস্ত কূ-কর্মের শেল্টার দাতা।

এলাকার সাধারণ ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে যে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকের নিকট এই কথিত নারী সাংবাদিক চাঁদা দাবি করে। আর চাঁদা দিতে অশিক্ষার করলে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় খবর ছাপার হুমকি দেয়। সে মুদি দোকান, পুরাতন বস্তার দোকান, বেকারী, কেরাম বোর্ড, ভাঙ্গারী দোকান, কম্পিউটারের দোকান সকল দোকান থেকে তাকে চাঁদা দিতে হবে নইলে নিউজে হুমকি প্রদান করে।

কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস পাই না কারণ তার পুরো পরিবার মাদকের সাথে জড়িত। এছাড়াও কথিত নারী সাংবাদিক এলাকায় মামলা বাজ হিসাবে খুব পরিচিত। এলাকার কারো সাথে এক কথা দুই কথা হলেই থানায় গিয়ে তাদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করে পুলিশ পাঠাই। এ বিষয়ে সরে জমিন ঘুরে জানা যায়, এলাকাবাসী ঐ কথিত নারী সাংবাদিক ও তার পরিবারের কাছে সাধারণ মানুষ জিম্মি হয়ে আছে। এই রকম এক ভূক্তভোগী চাঁদপুরী সালামের সহিত কথা হলে তিনি জানান কিছু দিন আগে আমার বাড়ীতে সাম্বাসিবল পাম্প লাগানোর সময় আমার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। আমি টাকা না দিলে আমার বিরুদ্ধে নিউজ করবে বলে হুমকি দেয়। এরপর আমার কাছে অনেক সাংবাদিক পাঠিয়ে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করার চেষ্টা করে।আমরা বর্তমানে তার কাছে জিম্মি হয়ে আছি তার ভাইয়েরা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী যে কোন সময় আমাদের ক্ষতি করতে পারে। গত ১৯ শে জানুয়ারী  বৃহস্পতিবার দুপুরে কথিত নারী সাংবাদিক ও তার ভাইদের গুন্ডা বাহিনী আমাদের উপর হামলা করতে আসে। আমরা এলাকাবাসী এক সাথে প্রতিহত করলে তারা পিছু হঠতে বাধ্য হয়।  (ধারাবাহিক চলবে )

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

two + twelve =