খাগড়াছড়িতে অফিসার ইনচার্জসহ তিন পুলিশের বিরূদ্ধে মামলা

0
169

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: সম্পত্তি আদায়ের উদ্দেশ্যে বল প্রয়োগ, ভীতি প্রদর্শন ও সম্পত্তির ক্ষতি করার অভিযোগে অফিসার ইনচার্জসহ তিন পুলিশের বিরূদ্ধে মামলা নিয়েছে আদালত। মামলাটি গ্রহন করে তিন পুলিশ সদস্যকে আগামী১১/০৫/২০২২ইং তারিখে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (আমলী) আদালতের বিচারক , সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটমো. ফরিদ আলম। অভিযুক্ত তিন পুলিশ সদস্য হচ্ছেন পানছড়ি থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ মোঃ নুরুল আলম, উপ পুলিশ পরিদর্শক মো: জসিম উদ্দিন ও

কনস্টেবল পারভেজ আহাম্মদ।  বিচারক আজ ১.৩০ ঘটিকার দিকে এই আদেশ দেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী নজরুল ইসলাম বলেন বাদী পানছড়ি থানার হাসপাতাল এলাকার

মৃত হাসান আলীর ছেলে মোঃ ফজল থানা সংলগ্ন ৪৮ শতক জায়গা ক্রয় সুত্রে মালিক ছিলেন। পানছড়ি থানার বাউন্ডারী ওয়াল নির্মান করতে গিয়ে তৎকালীন অফিসার ইনচার্জ  মোঃ নুরুল আলম, উপ পুলিশ পরিদর্শক মো: জসিম উদ্দিন ও কনস্টেবল পারভেজ আহাম্মদ জোর জবরদস্তি বাদীর ভুমির একাংশ দখল করে বাউন্ডারী ওয়াল নির্মান করে ফেলে। বাদী বাঁধা দিলে আসামীরা বাদী এবং তার ছেলেকে অবৈধ অস্ত্র ও মাদক দিয়ে মামলায় জড়িয়ে হয়রানী করার হুমকি দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় বিগত ১০/০৩/২০১৯ইং তারিখ রাত অনুমান ৯.০০ ঘটিকার সময়

আসামীরা জোর করে বাদীর ছেলে মোটর সাইকেল থানায় নিয়ে যায় এবং রেত দিয়ে মোটর সাইকেলের ইঞ্জিন ও চেচিস নাম্বার নষ্ট করে। এই বিষয়ে বাদী থানায় মামলা করতে চাইলে আসামীরা নেয়নি। পরে বাদী আদালতে এসে মামলা করলে আদালত তদন্তের নির্দেশ দেয়। পুলিশ পর পর দু’বার তদন্ত করলেও ঘটনার সত্যতা নেই

উল্লেখ করে প্রতিবেদন উপস্থাপন করে। বাদী নারাজি দিলে জুডিসিয়েল ইনকোয়ারী আদেশ দেন আদালত। জুডিসিয়েল ইনকোয়ারী ও সিআইডি চট্টগ্রামের প্রতিবেদনে বাদীর অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় মামলাটি আমলে নিয়ে তিন পুলিশ সদস্যকে সমনজারি করে পরবর্তী তারিখে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের কোট সাব ইন্সপেক্টর সাজু বড়–য়া বিষয়টি নিশ্চিত করেন

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

11 + seventeen =