মেট্রোরেলে খরচ বেড়েই চলছে

0
488

ঢাকাকে যানজট মুক্ত করার জন্য কত কিছুই না করা হচ্ছে। একের পর এক উড়াল সেতু নির্মান করেও যানজট থেকে নগরবাসিকে মুক্ত করা যাচ্ছে না। যানজটের কারণে জনজীবন হাসফাঁস। ঢাকার রাস্তাগুলোতে গাড়ির চাকা যেন ঘুরছে না। এই যানজটের কারণে প্রতি বছর অগণিত কর্মঘন্টা নষ্ট হচ্ছে। পুড়ছে কোটি কোটি টাকার জালানী তেল। জনজীবনে নেমে আসছে দূর্ভোগ। অবশেষে মেট্রো রেল নামক প্রকল্প হাতে নেওয়া হলো। মেট্রোরেল লাইনটি উত্তরার দিয়াবাড়ি থেকে মতিঝিল পর্যন্ত হওয়ার কথা। কিন্তু সম্প্রতি তা কমলাপুর পর্যন্ত বর্ধিত করার পরিকল্পনা রয়েছে। এর জন্য অতিরিক্ত ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটিার রেললাইন নির্মান করতে হবে। অধিগ্রহণ করতে হবে জমি। গণমাধ্যমে প্রকাশ, এই জমি অধিগ্রহণ ও পূণর্বাসনের জন্য খরচ হবে ১ হাজার ১৫ কোটি টাকা। প্রকল্পের সার্বিক ব্যয় মেটাতে জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা (জাইকা) ১৯ হাজার ৬০০ কোটি টাকা ঋন দেবে। বাকি টাকা জোগান দেবে সরকার।

উত্তরা দিয়াবাড়ি থেকে মতিঝিলের পরিবর্তে কমলাপুর পর্যন্ত মেট্রোরেল বর্ধিত করতে গেলে প্রতি সোয়া কিলোমিটারে খরচ বাড়ছে ৭ হাজার কোটি টাকার ওপরে। একই সঙ্গে প্রকল্পটির মেয়াদ ২০২৫ সালের ডিসেম্বরের শেষ পর্যন্ত বাড়াতে চায় ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কো: লি:।

মেট্রোরেল প্রকল্প অনুমোদন পায় ১০১২ সালে। এক দশক পর এসে রেললাইনের দৈর্ঘ্য বাড়ানোসহ বাড়তি আয়ের জন্য নতুন করে তিনটি স্টেশন প্লাজা ও ট্রানজিট ওরিয়েন্টেড ডেভলেপমেন্ট করতে চায় সংস্থাটি। বাড়তি এসব কাজ যুক্ত করতে প্রকল্পের ব্যয় ২১ হাজার ৯০০ কোটি টাকা থেকে বেড়ে এক লাফে ৩৩ হাজার ৪৭০ কোটি টাকায় উন্নিত হবে।

তিনটি স্টেশন প্লাজার জন্য সোয়া ছয় হেক্টর জমি অধিগ্রহণ করতে ৩ হাজার ৩০ কোটি ও তিনটি স্টেশন প্লাজার জন্য ৯৩ কোটি টাকা খরচ ধরা হয়েছে। এভাবে খরচের বোঝা বেড়ে চলছে। উল্লেখ্য, মেট্রো রেলের জন্য যখন প্রকল্প সমীক্ষা করা হয়েছিল তখন কোন স্টেশন প্লাজা ও ট্রানজিট ওরিয়েন্টেড ডেভলাপমেন্টের পরিকল্পনা করা হয়নি,

তা নিযে প্রশ্ন তুলেছে সড়ক পরিবহণ ও মহাসড়ক বিভাগ। এই প্রকল্পে ধীরগতি ও পরিকল্পনা পরিবর্তনের কারণে ব্যয়ের বোঝা সাধারণ জনগণের ওপর পড়বে। তাছাড়া দেশের অপরাপর প্রকল্পগুলোর মত এই প্রকল্প বাস্তবায়নে পুকুর চুরি হবে কি না সে বিষয়ে কর্তপক্ষের নজর থাকতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

18 − 2 =