মুক্তিযোদ্ধার বাড়িসহ জমি জোরপূর্বক দখলঃ সাহায্য চাচ্ছেন তিনি

0
493

মুক্তিযোদ্ধার তলা আবাসিক ভবনের ফাউন্ডেশন চার পাশের দেয়াল উপরে ফেলেন সিটি গ্রুপ
মুক্তিযোদ্ধারা এদেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। মুক্তিযোদ্ধাদের কারণেই আজ আমরা স্বাধীন সার্বভৌম একটি রাষ্ট্র পেয়েছি। বুক ভরে নিঃশ্বাস নিতে পারছি। একজন মুক্তিযোদ্ধার সাথে এমন আচরণ নিজ চোখে না দেখলে বিশ্বাস হত না। যেখানে এদেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের আজ লাঞ্জিত, অপদস্ত, হয়রান হতে হয়, সে দেশে আরও কত কি না হতে পারে!
রুপগঞ্জের কায়েতপাড়া ইউনিয়ন এর চনপাড় গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা রেফায়েত উল্লাহ তার নিজ জায়গায় বাড়ি নির্মাণ করার সময় মাতাকাফা ডন নামে পরিচিত জাহেদ আলী ২০০ অধিক সন্ত্রাশী নিয়ে এসে বেকু, বুলডেজার দিয়ে কাজ চলাকালীন সময়ে তার বাড়ির ফাউন্ডেশন উপরে ফেলেন। চার পাশের দেয়ালসহ সবকিছু বুলডেজার দিয়ে ভেঙ্গে ফেলেন। তলা বিশিষ্ট ভবনের ফাউন্ডেশন চারপাশের দেয়াল নির্মাণের কাজে তিনি ইতোমধ্যে ৫০ লাখ টাকার উপরে খরচ করেন।
সিটি গ্রুপ দালালের মাধ্যমে অনেক চাপ প্রয়োগ করার পরও তিনি তার জায়গা বিক্রি করতে অসম্মতি জানালে সিটি গ্রুপের হয়ে এই বর্বরোচিত ধবংসযজ্ঞ কাজ চালান ডন জাহেদ আলী। পুলিশ প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করে।
সিটি গ্রুপ তার দেয়াল ফাউন্ডেশন ভেঙ্গে উপ্রে ফেলে নতুনভাবে দেয়াল নির্মাণের কাজ শুরু করে দেন সেখানে।
তিনি স্থানীয় রূপগঞ্জ থানার ওসির সাথে যোগাযোগ করার পরও থানা থেকে কোনো সহযোগীতা না পেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হক সাহেবের সাথে কথা বললে তিনি দেখবেন বলেও পরবর্তীতে কোনো পদক্ষেপ নেন নি।
জাহেদ আলী সিটি গ্রুপের দালাল হিসেবে এখানে কাজ করেন। রুপগঞ্জের কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহেদ আলী নিজেকে তিনি মনে করেন উল্লেখিত ইউনিয়নের ডন। তাই তিনি প্রশাসন সাংবাদিকদের ডোন্ট কেয়ার করেই চলেন। ক্ষমতার পাংখায় তার এখন অনেক জোর। আর এই ক্ষমতাকে পুঁজি করেই তিনি কায়েতপাড়া ইউনিয়নকে নিজের কুক্ষিগত করে রেখেছে।
কেউ এখানে ছবি তুলতে বা ভিডিও করতে গেলে তাদের হুমকি দিয়ে বের করে দেওয়া হয়। এর আগেও জাহেদ আলীর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচার করায় সাংবাদিক পিটানোর মত ঘটনা তিনি ঘটিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মিডিয়ার এইদিকে নজর দেয়ার অনুরোধ রইলো। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। একজন মুক্তিযোদ্ধাকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসুন।
একজন মুক্তিযোদ্ধাকে সাহায্য করতে এই মেসেজ সর্বত্র ছড়িয়ে দেওয়ার অনুরোধ রইলো।
সবদিকে ছড়িয়ে দিন যেন যথাযথ কর্তৃপক্ষের নজরে আসে বিষয়টি।
আপনারা যারা সাংবাদিক আছেন তার সাহায্যে এগিয়ে আসুন।

Advertisement
Advertisement

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here