রোহিঙ্গাঁ ইস্যু নিয়ে ১৭ সেপ্টেম্বর ব্যাপক পরিসরে মানববন্ধন ॥ দিবাকালীন আন্তঃনগর ট্রেনের দাবিতে কর্মসূচি গ্রহণ

0
454

স্টাফ রিপোর্টার ঃ মায়নমারের মুসলিম রোহিঙ্গাঁদের গণহত্যা, নারী ও শিশু হত্যা, ধর্ষন, নির্যাতন, ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দেয়া, দেশ ছাড়া করার প্রতিবাদে এবং দ্রুত এ সমস্যা সমাধন, বাংলাদেশে আশ্রায় নেয়া রোহিঙ্গাঁদের অবিলম্বে ফিরিয়ে দেওয়া, গণতন্ত্রকামী নেত্রী অং সাং সুচি’র নোবেল শান্তি পুরস্কার ফিরিয়ে নেয়াসহ অবিলম্বে জাতি সংঘের হস্তক্ষেপ কামনা করে রোহিঙ্গাঁ সমস্যার স্থায়ী সমস্যা সমাধানের দাবিতে আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর রংপুর বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদের উদ্যোগে রংপুর মহানগরীর কাচারী বাজার চত্ত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বৃহৎ পরিসরে ব্যতিক্রম ধর্মী মানবনন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে। গত রবিবার রাতে রংপুর প্রেসক্লাব চত্ত্বরে বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদের আহ্বায়ক ও দৈনিক ইত্তেফাকের রংপুর অফিস প্রধান, বিশিষ্ট সংগঠক ও সমাজসেবী ওয়াদুদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় এই কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়। সভায় কর্মসূচী সফল করার লক্ষ্যে রংপুরের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবি, ছাত্র-যুব সংগঠনসহ সর্বস্তরের জনতার উপস্থিতি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
সভায় বক্তারা বলেন, রংপুর-ঢাকা রুটে দিবাকালীন অত্যাধুনিক আন্ত:নগর ট্রেন এবং চলমান ট্রেনসমূহে নতুন আধুনিক কোচ সংযোজন ও বন্ধ থাকা সকল ট্রেন চালুর দাবিতে চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি রংপুর রেল স্টেশন ঘেরাও, অবরোধ ও  বিক্ষোভ কর্মসূচি ৭ ঘন্টা ধরে পালন করা হয়। পরে রংপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক প্রিয় সিন্ধু তালুকদার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক একেএম মারুফ হাসান এবং সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস প্রদান করলে ঘেরাও অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হয়। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক প্রিয় সিন্ধু তালুকদার আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে  বলেন আগামী ফেব্রুয়ারী মাসে রেল মন্ত্রী মজিবুল হক রংপুরে এসে রংপুর-ঢাকা চলাচলকারী আন্তঃনগর ট্রেন রংপুর এক্সপ্রেসে নতুন ৬টি কোচ সংযোজন কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। পরে গত মার্চ মাসে রংপুর এক্সপ্রেসের ৬টি নতুন কোচ সংযোজন করা হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত রংপুর থেকে ঢাকাগামী দিবাকালীন আন্তঃনগর ট্রেনের বরাদ্দ দেওয়া হয়নি। তাই দাবি আদায়ের লক্ষ্যে নিয়মতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আগামী ডিসেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন শেষে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে রংপুর রেল স্টেশন ঘেরাও, অবরোধ পালনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর আগে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সরকারকে কমপক্ষে ১ মাস সময় দিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে। এর মধ্যে রয়েছে গণসংযোগ, সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন, প্রচারপত্র বিতরণ ইত্যাদি। এ সকল কর্মসূচি পালনের পরেও যদি দিবাকালীন আন্তঃনগর ট্রেন দেওয়া না হয় তাহলে অবরোধ ঘেরাও কর্মসূচি’র মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে। যেভাবে এর আগে এই জাতীয় কর্মসূচির মাধ্যমে রংপুর এক্সপ্রেস চালু হয়। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন,  বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদের অন্যতম নেতা রিপোর্টাস ইউনিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রবিউল হোসেন সরকার বাবলু, দৈনিক পরিবেশের বার্তা সম্পাদক ও পরিষদ নেতা মামুনুর রহমান মামুন, জাসদ (ইনু) সমর্থিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য ও মহানগর কমিটির সভাপতি ও বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদের নেতা ওসমান গণি, ফটো জার্নালিষ্ট এ্যাসোসিয়েশন এর প্রচার সম্পাদক ও পরিষদ নেতা আফজাল হোসেন, পরিষদ নেতা রিয়াজ আক্তার তুহিন, যুব নেতা ও পরিষদ সদস্য সাজু আহমেদ, বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলনের অন্যতম সদস্য সোহেল হোসেন, পরিষদ নেতা তানভীর আহম্মেদ, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ও পরিষদ নেতা ইমরান খাঁন, জাসদ (আম্বিয়া) সমর্থিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ রংপুর মহানগর সভাপতি ও পরিষদ নেতা এ.কে.এম.আব্দুল মুহিত, সংবাদিক ও পরিষদ নেতা এস.এম. লিটন, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন বাংলার চোখের সাধারণ সম্পাদক ও সংগঠক কামরুস্ সূফী, বেরোবি ই.এস ফাউন্ডেশনের সিইও ও পরিষদ নেতা অমিত বর্মণ অভি, পরিষদ নেতা রিয়াজ মোহাম্মদ, কমিউনিটি পুলিশিং ইউনিটের নেতা ও পরিষদ সদস্য এবং কাউন্সিলর প্রার্থী ফিরোজ হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ নেতা ও পরিষদ সদস্য রিফায়েতুল ইসলাম (মুন্না), পরিষদ নেতা মিজানুর রহমান, ফারুক ইকবাল, আল আনাজ (অনিক), নুর ইসলাম (নাহিদ), নাজমুল ইসলাম, আলম মিয়া, রকি হাসান, মোশারফ, রাকিব হাসান, রাবিব হোসেন, বিশাল, রাব্বি আলী, সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেন, শরিফুল ইসলাম, পারভেজ আলম, জুনায়েদ হোসেন, মেহেদী হাসান, লাজীম ইসলাম, অনিক ইসলাম, মেস্কা, নাঈম সরকার, জাহিদুল ইসলাম, রংপুর ফ্রেন্ডস্ সোসাইটি রায়হান জীবন, জয় সরকার প্রমুখ।

Advertisement
Advertisement

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here