ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য ভয়ংকর : মওদুদ মওদুদ আহমদ

0
1276

 

Advertisement

ষোড়শ সংশোধনী বাতিল নিয়ে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য ভয়ংকর অভিহিত করে এর পরিণতি শুভ হবে না বলে সরকারকে হুশিয়ার করেছেন মওদুদ আহমদ। সেইসাথে তিনি বলেছেন, সরকার সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী সংসদে পাস করলে তারা ভুল করবে।

শনিবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এই মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, সরকারের একজন অত্যন্ত সিনিয়র মন্ত্রী তিনি কালকে (শুক্রবার) বলেছেন যতবার এই ষোড়শ সংশোধনী বাতিল হবে, ততবারই আবার তারা সেই বিল বা আইন পাস করবেন।

অর্থাৎ সংবিধানকে সংশোধন করবে। এটা একটা ভয়ংকর কথা। এটাতে প্রমাণ করে যে, তারা সুপ্রিম কোর্ট বা আমাদের উচ্চতম আদালত বা বিচার বিভাগের প্রতি তাদের কোনো আস্থা নাই এবং তারা এই বিচার বিভাগের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না।

নিজের কর্ম অভিজ্ঞতার আলোকে সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী সাবেক আইনমন্ত্রী মওদুদ বলেন, অভিজ্ঞতায় আলোকে বলছি, যে সরকার যদি মনে করেন তারা বিচার বিভাগের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামবেন।

তাহলে আমি বলতে চাই যে, সেই প্রতিযোগিতায় আপনারা পরাজিত হবেন। কারণ যারাই বিচার বিভাগের ওপর হাত দিয়েছে আমরা অতীতেও দেখেছি, এখনো দেখছি, সেই হাত পুড়ে যায়, সেই হাত রক্ষা করা যায় না। বিচার বিভাগ সারভাইভ করে যায়, পার্লামেন্ট সারভাইভ করতে পারেনা, সরকারও সারভাইভ করতে পারে না।

সরকার পরিবর্তন হতে পারে, পার্লামেন্টের নতুন নির্বাচন হতে পারে কিন্তু এই বিচার বিভাগের যে অস্তিত্ব, যে ইজ্জত-সন্মান, যে ডিগনিটি সেটা সব সময় থেকেছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

সরকারকে সর্তক করে দিয়ে সাবেক আইনমন্ত্রী ‍বলেন, এই রায়কে সমুন্নত রাখতে হবে। যারা এই রায় অবমূল্যায়ন করবেন, সরকার যদি সেই পথে আরেকবার সংশোধন করতে চান তাহলে তারা ভুল করবেন এবং তাতে এই সরকারের পতন আরো দ্রুত গতিতে হবে বলে আমি মনে করি।

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়কে ‘ঐতিহাসিক’ অভিহিত করে তিনি বলেন, এই রায় শুধু ঐতিহাসিক নয়, এই রায় দেশের ১৬ কোটি মানুষের মনের ইচ্ছার প্রকাশ করেছে। আমিসহ দেশের সকলে সুপ্রিম কোর্টের এই ৭জন বিচারপতি সর্বসম্মতিক্রমে এই রায় দিয়েছেন, তাদেরকে আমরা সকলে মিলে সালাম জানাই। এই রায় জাতীয় দলিল বলে আমরা আখ্যায়িত করতে পারি।

এমন কোনো বিষয় নাই যার প্রতিফলন হয়নি, জনগনের মধ্যে যে ক্ষোভ-দূ:খ আছে, অভিযোগ আছে সেগুলোর প্রতিফলন ঘটে নাই। জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে ‘ নিরপেক্ষ, অংশগ্রহনমূলক নির্বাচন : প্রয়োজন রাজনৈতিক ঐক্য’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়।

চিকিৎসার জন্য লন্ডনে অবস্থানরত খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের আবেদনের প্রতি ইংগিত করে মওদুদ আহমদ বলেন, তিনি (খালেদা জিয়া) গেছেন চিকিৎসার জন্য। চিকিৎসা শেষ হলে তিনি অবশ্যই দেশে ফিরে আসবেন। তার এই বিদেশ সফর নিয়েও নানারকম কথা-বার্তা বলা শুরু করেছে।

আদালত থেকে একটি কারণ দশানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে কেনো তিনি আদালতে উপস্থিত হবেন না। অথচ আদালত জানেন যে তিনি (খালেদা জিয়া) বিদেশে আছেন। আমরা বলতে চাই, এই ধরণের ষড়যন্ত্র করে বিএনপিকে দূর্বল করা যাবে না। বরং এই দল আরো বেশি সমর্থন লাভ করবে। নিজের নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীসহ সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে দলের সদস্য সংগ্রহ অভিযানে ঘরোয়া সভার কর্মসূচির অনুমতি না দেয়ার সরকারের নীতির কঠোর সমালোচনা করেন তিনি।

নাগিরক ফোরামের সভাপতি আবদুল্লাহিল মাসুদের সভাপতিত্বে ও সহসভাপতি পারভেজ হোসেনের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এস এম হাসান তালুকদার প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

আলোচনাসভার বিশেষ অতিথি নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ও জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন যানজটের কারণে অনুষ্ঠানে শেষ সময়ে এসে উপস্থিত হলেও তারা বক্তব্য রাখেননি।

Advertisement

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here