প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রুপপুরে পারমানবিক কেন্দ্রের উদ্ভোধন করেন

0
762

পাবনার রূপপুরে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুল্লির জন্য কংক্রিটের মূল স্থাপনা নির্মাণের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বৃহস্পতিবার সকালে জেলার ঈশ্বরদী উপজেলায় পদ্মাতীরের রূপপুরে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।
এর আগে সকালে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে রূপপুরে আসেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর এই সফর উপলক্ষে ঈশ্বরদী বিমানবন্দর থেকে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প পর্যন্ত ১৭ কিলোমিটার সড়ক সাজানো হয় মনোরম সাজে। প্রকল্প এলাকায় নেওয়া হয় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটিতে থাকছে দুটি ইউনিট— প্রতিটির উৎপাদনক্ষমতা ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট। অর্থাৎ বিদ্যুৎকেন্দ্রটি থেকে পাওয়া যাবে মোট ২ হাজার ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। প্রথম ইউনিটটি চালু হওয়ার কথা ২০২১ সালে। দ্বিতীয়টি চালু হবে ২০২৩ সালে। ২৬১ একর জমির ওপর নির্মাণ করা হচ্ছে এ বিদ্যুৎকেন্দ্র।

রাশিয়ার আর্থিক, কারিগরি ও প্রযুক্তিগত সহায়তায় এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আওতায় বাংলাদেশ আণবিক শক্তি কমিশন এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। ২০১১ সালে রোসাটামের সঙ্গে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ চুক্তি সই হয়। ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে দুই দেশের মধ্যে প্রকল্পের ইঞ্জিনিয়ারিং ডিজাইন, সাইট ডেভেলপমেন্ট ও পার্সোনেল ট্রেনিংয়ের জন্য সই হয় ৫০ কোটি ডলারের ঋণ চুক্তি।
প্রকল্প বাস্তবায়নে ২০১৫ সালের ২৫ ডিসেম্বর বাংলাদেশ আণবিক শক্তি কমিশন ও জেএসসি অ্যাটমস্ট্রয়এক্সপোর্টের মধ্যে চুক্তি সই হয়। চুক্তিতে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সই করেন আণবিক শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান মো. মনিরুল আলম ও অ্যাটমস্ট্রয়এক্সপোর্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির এন সাভুসকিন।
২০১৫ সালের ডিসেম্বরে রাশিয়ার সঙ্গে এ প্রকল্পের বিনিয়োগ ব্যয় চূড়ান্ত করে বাংলাদেশ। বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণে ব্যয় হবে ১ হাজার ২৬৫ কোটি ডলার বা ১ লাখ কোটি টাকারও বেশি। এর মধ্যে ১ হাজার ১৩৮ দশমিক ৫ কোটি ডলার অর্থাৎ ৯০ শতাংশ ঋণ নেয়া হচ্ছে রাশিয়ার কাছ থেকে। রোসাটামের নিয়োগ দেয়া ঠিকাদার রাশিয়ার অ্যাটমস্ট্রয়এক্সপোর্ট এটি নির্মাণ করছে। চুক্তি অনুযায়ী বিদ্যুৎকেন্দ্রটি স্থাপনে রাশিয়া সব ধরনের সহায়তা দেবে। পাশাপাশি কেন্দ্রটির জ্বালানি সরবরাহ ও ব্যবহৃত জ্বালানি ফেরত নেবে দেশটি।
উল্লেখ্য, ১৯৬১ সালে রূপপুরে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়। এরপর ২০১১ সালের নভেম্বরে রাশিয়ার সঙ্গে সহযোগিতা চুক্তি সই হয়। ২০১৩ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎকেন্দ্রের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

thirteen − thirteen =