পাকিস্তানকে অলআউট করেও অস্বস্তিতে শ্রীলঙ্কা

0
88

করাচিতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনই স্বাগতিক পাকিস্তানকে ১৯১ রানে অলআউট করে দিয়েছে সফরকারী শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। কিন্তু দিন শেষে স্বস্তিতে নেই লংকানরাও। কারণ নিজেদের ইনিংসে ব্যাট হাতে জবাব দিতে নেমে প্রথম দিন শেষে ৩ উইকেটে ৬৪ রান করেছে শ্রীলংকা। ফলে ৭ উইকেট হাতে নিয়ে ১২৭ রানে পিছিয়ে শ্রীলঙ্কা।

বৈরি আবহাওয়ার কারণে দশ বছর পর পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট ফেরার প্রথম টেস্টটি ড্র হয়। আর দ্বিতীয় ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান। কারণ প্রথম টেস্টের পঞ্চম ও শেষ দিন ব্যাট করার সুযোগ পেয়ে বড় স্কোরই করে পাকিস্তান। শ্রীলংকার ৬ উইকেটে ৩০৮ রানের জবাবে আবিদ আলি ও বাবর আজমের জোড়া সেঞ্চুরিতে ২ উইকেটে ২৫২ রান করেছিলো পাকিস্তান। তাই টস এ ম্যাচে আগে ব্যাট করার সুযোগ হাতছাড়া করেনি পাকিস্তান।

কিন্তু ব্যাট হাতে নেমেই ১০ রানের মধ্যে ২ উইকেট হারিয়ে বসে পাকিস্তান। শান মাসুদ ৫ ও অধিনায়ক আজহার আলি শূন্য রানে ফিরেন। দু’টি উইকেট নেন শ্রীলংকার পেসার বিশ্ব ফার্নান্দো। এরপর দলের হাল ধরেছিলেন রাওয়ালপিন্ডিতে ১০৯ রান করা আবিদ ও ১০২ রান করা বাবর। আবিদ ৩৮ রানে থামলেও, হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন বাবর। শেষ পর্যন্ত ৬০ রানে থামেন তিনি।

বাবরের মত মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান আসাদ শফিকও হাফ-সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন। তবে তিনিও বড় করতে পারেননি নিজের ইনিংসকে। ৬৩ রানে আউট হন শফিক। এরপর পাকিস্তানের ছয় ব্যাটসম্যানকে দু’অংকের কোটা স্পর্শ করতে দেননি শ্রীলংকার পেসার লাহিরু কুমারা ও বাঁ-হাতি স্পিনার লাসিথ এম্বুলদেনিয়া। ফলে ৫৯ দশমিক ৩ ওভারে ১৯১ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। শ্রীলংকার কুমারা ৪৯ রানে ও এম্বুলদেনিয়া ৭১ রানে ৪ টি করে উইকেট নেন।

চা-বিরতির পর পাকিস্তানের ইনিংস শেষে ব্যাট হাতে নামে শ্রীলঙ্কা। দিনের শেষ সেশনে ১৯ ওভার ব্যাট করার সুযোগ পায় লংকানরা। এতেই তিন ব্যাটসম্যানকে হারায় তারা। ওসাদা ফার্নান্দো ৪ রান করে পাকিস্তানের পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির শিকার হন। অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে ২৫ ও কুশল মেন্ডিস ১৩ রান করে আরেক পেসার মোহাম্মদ আব্বাসের বলে আউট হন।

দিন শেষে সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ৮ ও এম্বুলদেনিয়া ৩ রানে অপরাজিত আছেন।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

eleven − ten =