স্কুল ছাত্রী সাফার অন্যন্য উদাহরণ

0
82

করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন মনিপুর হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ, শেওড়াপাড়া শাখার ৯ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ইফফাত জাহান সাফা। তার লেখা দুটি বই বিক্রির টাকা এবং টিফিনের টাকা থেকে জমানো অর্থ (প্লাস্টিকের ব্যাংকে) ঝলক ফাউন্ডেশনের প্রকল্প‌ ‘মানুষের আহার কার্যক্রম’-এ দান করেন। বুধবার (৬ মে) ঝলক ফাউন্ডেশনের পক্ষে এ অর্থ গ্রহণ করেন বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ও ঝলক ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা মনসুর আহমেদ চৌধুরী। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঝলক ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি এবং সভাপতি ড. জাহিদ আহমেদ চৌধুরী (বিপুল), সাফার বাবা- সমাজবন্ধু মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন, মাতা- কবি আফিয়া রুবি, ঝলক ফাউন্ডেশনের মিডিয়া কো-অর্ডিনেটর সাইফুল শুভ এবং এস.এস ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন-এর সাধারণ সম্পাদক ও শক্তি ফাউন্ডেশনের জি.এম মো. হুমায়ুন কবির শিমুল। ইফফাত জাহান সাফা খুদে লেখক হিসেবে ইতিমধ্যেই পরিচিতি অর্জন করেনিয়েছেন।

তার লেখা প্রথম বই ছোটগল্প ‘মেরির লাল ফিতা’ ও দ্বিতীয় বই কিশোর উপন্যাস ‘বৃষ্টি’ দুটিই বইমেলায় বেশ সাড়া জাগিয়েছে। গতবছর ‘ইসলামী ফাউন্ডেশন’ তার বেশ কিছু বই কিনে নেয়। সেই বই বিক্রির টাকার সাথে বাবার দেয়া টিফিনের জন্য জমানো অর্থ দরিদ্র মানুষের খাবারের জন্য দান করেন। তার বাবা ও মা উভয়ই ‘ইস্পাহানি ইসলামিয়া চক্ষু ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল’ এ কর্মরত আছেন।

সাফার বাবা ইকবাল হোসেন ‘শাহজাহান স্মৃতি ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন’ এর মাধ্যমে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় দরিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা এবং দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, চক্ষুসেবাসহ অনেক সামাজিক কর্মকান্ড করে আসছেন। এজন্য কাপাসিয়া উপজেলার পক্ষ থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান অালহাজ্ব অ্যাড. মোঃ আমানত হোসেন খান তাঁকে ‘সমাজবন্ধু’ উপাধি দেন।

ঝলক ফাউন্ডেশন মাদকমুক্ত সমাজ গঠণ, এতিম ও অসহায় শিশুদের সহায়তা এবং শিক্ষা-স্বাস্থ্য খাতে দুই যুগ ধরে কাজ করে আসছে। প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে মানুষের আহার কার্যক্রমের মাধ্যমে রমজানে দরিদ্র মানুষের মাঝে ইফতার এবং রাতের খাবার বিতরণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × three =