রংপুরে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের কর্মসূচীতে পুলিশের হামলা ও ১০ নেতাকর্মী গ্রেপ্তারের নিন্দা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবি-

0
182


করোনা মহামারী মোকাবিলায় আপদকালীন স্বাস্থ্যখাতে বাজেটের ২০%
বরাদ্দ, প্রতি জেলায় ২৫টি ভেল্টিলেটর মেশিন স্থাপন, কেন্দ্রীয় অক্সিজেন
ব্যবস্থা চালুসহ ৫০০ শয্যার কোভিড হাসপাতাল চালু, বিনামূল্যে
করোনা টেস্টসহ স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার দাবিতে কেন্দ্রীয়
কর্মসূচীর অংশ হিসেবে গতকাল প্রগতিশীল ছাত্রজোট রংপুর জেলার
উদ্যোগে প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজন করে।
কিন্তু শুরুতেই পুলিশ ব্যানার প্লাকার্ড কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করে।
পুলিশি বাধা উপেক্ষা করেই বিক্ষোভ কর্মসূচী চলতে থাকে।
প্রগতিশীল ছাত্রজোট নেতা প্রহ্লাদ রায়, সাজু বাসফোর, দেবাশীষ রায়
উক্ত বিক্ষোভে বক্তব্য প্রদান করেন। কর্মসূচী চলাকালীন পুলিশ
লাঠিচার্জ শুরু করে এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। বিক্ষোভ
কর্মসূচী শেষ করে নেতাকর্মীরা চলে যাওয়ার সময় মেট্রো কোতয়ালী
থানার ওসির নেতৃত্বে নাহিদ ও বিশাল কে গ্রেফতার করে। এর কিছুক্ষণ
পর বাসদ অফিস থেকে জেলা আহŸায়ক আব্দুল কুদ্দুস ও ছাত্রফ্রন্ট নেতা
প্রহ্লাদ সহ আরও ৮ জনকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা
জানিয়ে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট রংপুর মহানগর শাখার আহŸায়ক
সাজু বাসফোর বলেন করোনা নিয়ে সরকারের অবহেলাই লক্ষাধিক মানুষের
আক্রান্ত হওয়া এবং শত শত মানুষের মৃত্যুর কারণ। কোটি কোটি টাকা
লুটপাট হচ্ছে। সামরিক খাত, ব্যাংক খাতে হাজার হাজার কোটি টাকা
বরাদ্দ হচ্ছে। অথচ টাকার অভাবে হাসপাতালগুলোতে ভালোভাবে করোনার
চিকিৎসা হচ্ছে না। কোভিড-১৯ টেস্ট করানোর জন্য দিনের পর দিন
লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। অনেকেই টেস্ট না করিয়েই মৃত্যুর
কোলে ঢলে পড়ছে। এখন আবার করোনা পরীক্ষার জন্য সরকার জনগণের
কাছে টাকা নেয়ার পরিকল্পনা করছে। এতসব অন্যায় সরকার করছে। অথচ
এর বিরুদ্ধে কথা বলতে গেলে গ্রেফতার ও লাঠিচার্জ করা হচ্ছে। আমরা

সরকারের এই ফ্যাসিবাদী কর্মকান্ডে তীব্র নিন্দা জানাই এবং
নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি চাই। অবিলম্বে জাতীয় বাজেটে করোনা
মহামারী মোকাবেলায় আপদকালীন স্বাস্থ্যখাতে ২০% বরাদ্দ সহ
বিনামূল্যে করোনা টেস্ট ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা জোড় দাবী
জানাই।

বার্তা প্রেরক
শিহাব

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × 3 =