সাংবাদিক বানানোর কথা বলে নারীকে ধর্ষণ

0
84

চট্টগ্রাম নগরের পাহাড়তলী থানার হাজী ক্যাম্প সরাইপাড়া এলাকায় ‘এস টিভি ২৪’ নামক অখ্যাত ইউটিউব চ্যানেলে চাকরি দিয়ে ধর্ষণের দায়ে কথিত সাংবাদিক শহিদুল ইসলামের (৪৮) বিরুদ্ধে পাহাড়তলী থানায় অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী দুই নারী।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, এস টিভি ২৪ অফিসে চাকরি করেন শ্রাবণী (ছন্দনাম)। শ্রাবণী ও সপ্না নানা অনুষ্ঠানের নিউজ সংগ্রহ করলেও তা প্রচার না হওয়ায় তারা শহিদুলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলতেন, ‘সময় হলে তা প্রচার হবে’। শহিদুল দীর্ঘদিন ধরে শ্রাবণীকে শহিদুল ধর্ষণ করে আসছিলেন। লোকলজ্জার ভয়ে কাউকে বলতে পারেননি। এছাড়া গোপন ক্যামেরায় বিশেষ মুহূর্তগুলো ধারণ করে রাখায় তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে তাকে দমিয়ে রাখে। এর মাঝে সপ্না (ছদ্মনাম) চাকরিতে যোগ দিয়ে জানতে পারেন শ্রাবণীকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণের কাহিনী। কিছুদিন পর শহিদুল শ্রাবণীর মত সপ্নার সাথেও একই আচরণ করতে চাইলে প্রতিবাদ করেন স্বপ্না। তবে শহিদুলের ধর্ষণে শ্রাবণীর গর্ভবতীর হওয়ার কথা শুনে স্বপ্না ভীত হন। পরে দুজনে মিলেই আইনের আশ্রয় নেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

অভিযোগকারী নারী স্বপ্না বলেন, ‘অভিযুক্ত শহিদুল গোপন ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিও দেখিয়ে বলেছেন, ‘বেশি বাড়াবাড়ি করলে দুজনের ভিডিও ইউটিউবে ছড়িয়ে দেওয়া হবে।’ হুমকির পরেও স্বপ্না থেমে না থেকে পাহাড়তলী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা করেছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘চাকরিতে যোগ দেওয়ার কিছুদিন পর শহিদুল আমাকে নোংরা প্রস্তাব দিলে আমি প্রতিবাদ করি।পরে আমি ও আরেক সহকর্মী মিলে তার বিরুদ্ধে নারীর ও শিশু নির্যাতন মামলা দায়ের করি। আমরা তার উপযুক্ত বিচার চাই।’

পাহাড়তলী থানার পরিদর্শক (তদন্ত)মো. হাসান ইমাম বলেন,‘শহিদুল নামক এক ব্যক্তি সাংবাদিকতার নামে নারীদের যৌন হয়রানি করে আসছিল। দুজন ভুক্তভোগী তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।’

পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মঈনুর রহমান বলেন, ‘দুজন নারী যৌন অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা মামলা নিয়েছি। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের অধীনে যৌন হয়রানির মামলা দায়ের হয়েছে।’

এদিকে সংশ্লিষ্ট অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, কখনো এস টিভি ২৪ আবার কখনো বাংলা টিভির সাংবাদিক পরিচয়ে হাজী ক্যাম্প সারাই পাড়া এলাকায় অফিস খুলে বসেন সারাইপাড়ার লোহারপুল এলাকার শহিদুল ইসলাম।এলাকায় সাংবাদিক পরিচয়ে মানুষকে নানা ধরণের হয়রানি করেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

thirteen + 2 =