আমি জনগণের ভালোবাসা নিয়ে বাঁচতে চাই ….শরীফুল ইসলাম

2
269

জেমস এ কে হামীম: জনগনের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে নাম-যশ-সুখ্যাতি অর্জন করেছেন, জনগনের কাছে নিজেকে করে তুলেছেন একজন জনবান্ধব জনপ্রতিনিধির ভরসা ও আশ্রয়স্থল হিসেবে অনন্য উদাহরণ। সদালাপী ও বিনয়ী মনোভাবাপন্ন, দু:খী ও অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে সদা তৎপর, রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন ডুমনী ইউনিয়নের পরির্ষদের (সাবেক চেয়ারম্যান) শরীফুল ইসলাম ভূঁঞা জনগনের আশা আকাঙ্খার প্রতিদান স্বরূপ মনস্থির করেছেন, আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৪৩ নং ওয়ার্ডেও কাউন্সিলর হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। জনগনের ভাগ্যোন্নয়নের একজন ত্যাগী অংশীদার হিসেবে তিনি আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। সহোদর বড়ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা হেলাল উদ্দিন ভূঁঞার হাত ধরে ১৯৮৬ সাল থেকে রাজনীতির হাতে-খঁড়ি হওয়ায়, জনগনকে খুব কাছ থেকে দেখার ও তাদের জীবনের বিভিন্ন আনুষাঙ্গিকতার সাথে পরিচিত হতে পেরেছিলেন সেই যুবক বয়স থেকেই।

তাদের নিত্তনৈমিত্তিক জীবনধারার সাথে নিজেকে খাপ খাইয়ে চলতে পারার এক অসাধরণ গুণাবলীর কারণেই, তিনি আজ জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছেন বলে মনে করে স্থানীয়রা। ধৈর্য্য সহকারে সমাজের সর্বস্থরের মানুষের নানাবিধ সমস্যার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনে, সঠিক সমাধানের পারঙ্গমতা শরীফুল ইসলাম ভূঁঞাকে নিয়ে গেছে এক অনন্য উচ্চতায়। যেখানে তাঁর তুলনা শুধু সে নিজেই। স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মন্দির, রাস্তাঘাট, বাজার, ব্রিজ-কালভার্টসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নে তার ভূমিকা সর্বমহলে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত।

বন্যাদুর্গতদের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করে দূরদর্শিতার পরিচয় দিয়ে, বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রেখে দেশের সমৃদ্ধির পথকে করে তুলেছেন সুগম ও মসৃন। ইভ-টিজিং রোধে তার গৃহিত পদক্ষেপে স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসার ছাত্রীরাসহ, বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার নারীরা আজ নিরাপদে, নির্বিঘেœ চলাফেরা করতে পারছে।

বাল্যবিবাহ রোধ, বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ শক্ত হাতে দমন, চাঁদাবাজী-মাদকের বিরুদ্ধে “জিরো টলারেন্স” নীতি অবলম্বন করার কারণে, দুষ্কৃতিকারীদের নিকট সাবেক চেয়ারম্যান শরীকুল ইসলাম ভূঁঞা হয়ে উঠেছেন এক মূর্তিমান আতঙ্কের নাম।

ডুমনী উচ্চ বিদ্যালয়ের বাণিজ্য বিভাগের একজন শিক্ষক হিসেবে, শিক্ষার্থীদের নিকট অত্যন্ত প্রিয়পাত্র ও সজ্জন হিসেবে পরিচিত, বর্তমানে খিলক্ষেত থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী, ডুমনী উচ্চ বিদ্যালয়ের আজীবন দাতা সদস্য,

ডুমনী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎসাহী শরীফুল ইসলাম ভূঁঞাকে, আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৪৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে বিজয়ী করতে, নির্বাচন আসার অনেক আগেভাগেই স্থানীয় ভোটাররা আলাপচারিতায় চায়ের কাপে ঝড় তুলতে শুরু করে দিয়েছেন।

স্থানীয় ভোটারসহ আবাল-বৃদ্ধ-বণিতার ভালোলাগার মানুষ, তাদের প্রিয় শরীফুল ইসলাম ভূঁঞা “ভাইয়ের” মনোনয়নপ্রাপ্তি এবং বিজয়কে যেনো শুধু মাত্রই সময়ের অপেক্ষা মাত্র বলেই জ্ঞান করছেন সকলেই।

এ প্রসঙ্গে মনোনয়ন প্রত্যাশী শরীফুল ইসলাম ভূঁঞার সাথে আলাপকালে তিনি জানান, “আমার পাবার নেই কোনও কিছুই, কিন্তু জনগনকে দেবার আছে অনেক।

তারা বিগত দিনে আমাকে যে ভালোবাসার অদৃশ্য বাধনে আবদ্ধ করেছে, ভবিষ্যতে সুযোগ পেলে আমি তাদের সেবা করতে পারলে, নিজেকে ধন্য মনে করবো। আমি সবসময় তাদের মুখে হাসি দেখতে চাই। এলাকার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আমি সচেষ্ট থাকবো ইনশাআল্লাহ”

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 − 1 =