মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট জীবন বাঁচাতে হাজী নূর হোসেনের আকুল আবেদন

0
608

সাইফুল ইসলাম সুমন: মানুষের রাতের ঘুম ভাঙ্গলে সকাল-আর ঘুম না ভাঙ্গলেই পরকাল। অথচ কিছু অমানুষ এই চিরসত্যটুকু মৃত্যুর কথা মনে না রেখে শুধু সহায়-সম্পদের জন্য নানা অপরাধ ও অপকর্ম করে আসছে। রাজধানী হাজারীবাগের ঝাউচরের দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী, বহু মামলার আসামী ভূমিদস্যু দ্বীন ইসলাম, তার সহোদর ভাই ইকরাম এবং তাদের পালিত সন্ত্রাসী হেলাল ও জামাল সহ বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে সাধারণ মানুষের জমি দখল করার জন্য একটি সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছে। এই সিন্ডিকেটের হাত থেকে তাদের ঘনিষ্ঠ আত্মীয়-স্বজনসহ আপনজন কেহই রক্ষা পাচ্ছে না। এলাকার প্রবীন এক সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন-দ্বীন ইসলাম বিএনপি রাজনীতির সাথে জড়িত থেকে যদি এখনই এই সরকারের আমলে এভাবে জোরজবস্তি করে তাহলে যদি কোন দিন বিএনপি ক্ষমতায় আসে সেদিন আমাদেরকে পরিবার-পরিজন নিয়ে বাড়ী-ঘর ছেড়ে পালিয়ে যেতে হবে। হাজারীবাগ ঝাউচরের স্থানীয় বাসিন্দা হাজী মো: নূর হোসেন উক্ত দ্বীন ইসলাম গংদের হাত থেকে প্রাণ বাঁচাতে বিভিন্ন সরকারী অফিস সহ নানা সংবাদপত্রের অফিসে দৌড়ঝাঁপ করছে। দ্বীন ইসলাম গংদের হাতে গত ০৭/০১/২০২১ইং তারিখে হাজী নুর হোসেনর আত্মীয় জাহিদকে দ্বীন ইসলাম গংরা বেদম মারধোর করে।

গৃহপালিত সন্ত্রাসী হেলাল

পরবর্তীতে উক্ত তারিখেই এই বিষয়ে জাহিদ হাজারীবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করে, যাহার নম্বর: ৩৭৭। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সন্ত্রাসী দ্বীন ইসলাম, ইকরাম, হেলাল, জামাল সহ আরও ২০/২৫ জন বহিরাগত সন্ত্রাসীরা মিলে হাজী মো: নূর হোসেন এবং তার পরিবারের সদস্যদের উপর ব্যাপক তান্ডব চালায়।

সন্ত্রাসী ইকরাম

রক্তাক্ত অবস্থা তারা হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ী ফেরার পথে পথিমধ্যে প্রকাশ্যে দিবালোকে শত-শত মানুষের সামনে হাজী নূর হোসেনের বুকের উপর এলোপাথারী লাথি মেরে তাকে আবারও জখম করে রাস্তায় ফেলে রাখে। শুধুমাত্র সম্পত্তির কারণে একজন বয়োজৈষ্ঠ্য হাজীকে আঘাত করে সন্ত্রাসী দ্বীন ইসলাম গংরা।

আহত হাজী মো: নূর হোসেন

এ ব্যাপারে হাজী নূর হোসেন গত ০৮/০১/২০২১ইং তারিখে হাজারীবাগ থানায় একটি মামলা রুজু করে, যাহার নম্বর: ১৪। বর্তমানে দ্বী ইসলাম গংরা উক্ত মামলা থেকে জামিন নিয়ে আবারও হাজী মো: নূর হোসেন সহ তার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এই প্রতিবেদকের সাথে কান্নাজড়িত কন্ঠে হাজী মো: নূর হোসেন বলেন-ভাই আমরা ঝাউচর বড় জামে মসজিদ সহ আরও ২টি মসজিদের জায়গা দান সহ মসজিদের নির্মাণ কাজের জন্য আর্থিকভাবে সহযোগিতাও করেছি। অথচ এখন আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি দখল নেবার জন্য দ্বীন ইসলাম গংরা কয়েক বৎসর যাবত আমাদের উপর অকথ্য নির্যাচন চালিয়ে যাচ্ছে।

আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও শুধুমাত্র গায়ের জোর দিয়ে দ্বীন ইসলাম গংরা আমাদের জায়গা দখল করতে চাচ্ছে। আমি ইতিপূর্বেও ওদের বিরুদ্ধে হাজারীবাগ থানায় মামলা করি, যাহার নম্বর: ২৪। কিন্তু ওরা টাকার জোরে জামিন নিয়ে এসে আমাদের উপর পুনরায় আরও আক্রমনাত্মকভাবে অত্যাচার শুরু করে। ঝাউচরে শুধু আমরাই নই, আরও অনেক প্রতিবেশীকে ওরা মৃত্যুর আতংকে আতংকিত করে রেখেছে।

তারা ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে পিলার ছাড়া শুধুমাত্র ইটের গাঁথুনী দিয়ে ৪ তলা ভবন নির্মাণ করে ভাড়া দিয়ে শত-শত মানুষের জীবন মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে। এলাকাবাসীর ধারণা উক্ত বিল্ডিং যে কোন সময় ভেঙ্গে যেতে পারে। কিন্তু দ্বীন ইসলাম গংদের ভয়ে এলাকাবাসী কোন রকম টু-শব্দটিও করে না। উক্ত দ্বীন ইসলাম এতটাই পাষন্ড যে, সে তার পিতাকে প্রকাশ্যে জনগণের সামনে ঝাড়– দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছে। সেখানে আমি হাজী মো: নূর হোসেনতো কিছুই না।

আমি আপনাদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধামন্ত্রীর কাছে জানাতে চাই যে, এই দ্বীন ইসলাম গংদের অত্যাচারের হাত থেকে আমি সহ আমার পরিবারের প্রতিটি সদস্য চিরমুক্তি চাই, যাতে আমরা আমাদের স্বাভাবিক কাজকর্ম সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে চালিয়ে যেতে পারে, সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করছি। অপরাধ বিচিত্রার আগামী সংখ্যা দ্বীন ইসলাম গংদের আরও বহু কু-কর্মের কাহিনী বিস্তারিতভাবে তুলে প্রকাশ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

14 + six =