হবিগঞ্জে পাওনা টাকা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে সাপ্তাহিক অপরাধ বিচিত্রা পত্রিকা সাংবাদিকের ছেলে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যা

0
284

স্টাফ রিপোর্টার

 হবিগঞ্জে পাওনা টাকার জন্য শহরতলীর পশ্চিম ভাদৈ গ্রামে  আহমদ আলী স্বপন (২৪) নামের পবিত্র কুরআনের হাফেজ নিহত হয়েছেন।

 তিনি ওই গ্রামের বাসিন্দা ও ঢাকা থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক  অপরাধ বিচিত্রা পত্রিকার হবিগঞ্জ  জেলা প্রতিনিধি, মোঃ জমির আলীর পুত্র।

এ ঘটনায় মুল ঘাতক মাইনুল ইসলাম সহ দুইজনকে আটক করেছে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পুলিশ। গত ২২/০৪/২০২১ইং তারিখ  বৃহস্পতিবার রাত ১০,৩০ ঘটনার সময় হবিগঞ্জ সদর উপজেলা পশ্চিম ভাদৈ বাইপাস সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

 এতে এলাকায় নামের এক যুবকের কাছে ১ হাজার টাকা পেতেন।

ঘটনার ওই সময় পাওনা টাকা নিয়ে মইনুলের সাথে স্বপনের বাকবিতণ্ডা হয় কিছুক্ষণ পর মাইনুল সহ ৩/৪ জন যুবক স্বপনকে একা পেয়ে ধারালো ছুরি  দিয়ে কুপিয়ে ক্ষত বিক্ষত করে।

 গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়  লোকজনসহ তার ছোট ভাই মোহাম্মদ আলী শিপন, স্বপনকে উদ্ধার করে প্রথমে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল এবং পরে সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায়,২৩/০৪/২০২১ইং তারিখ  শুক্রবার সকাল, ১০,২০ মিনিটে তিনি মারা যান।

ওই দিন রাতেই সদর থানা পুলিশ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাইনুল সহ দই জনকে আটক করেন।

এ ঘটনায় হবিগঞ্জ সদর মডেল  থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে ওইদিন শুক্রবার রাত ১০,ঘটনার সময়  স্বপনের জানাজা শেষে তার গ্রামের  বাড়ি তেতৈয়া  তাকে দাফন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি মোঃ মাসুক আলী জানান, মূলহোতা মাইনুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে, এবং প্রধান আসামী মাইনুলকে হবিগঞ্জের বিজ্ঞ আদালতে হাজির  করে,তার ১৬৪, ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে।

  মহামান্য আদালত তাদেরকে জেলা কারাগারে প্রেরণ করেছেন।

অন্য আসামিরা পলাতক রয়েছেন তাদেরকে গ্রেপ্তারের  অভিযান অব্যাহত আছে। 

তিনি  আরো  জানান যে,গত ২২ইং এবং ২৩ইং তারিখে এত বড় একটা দুর্ঘটনা ঘটলো, 

সেই বিষয়ে, অবগত নন, হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকসহ জেলার বিভিন্ন সরকারী কর্মকর্তাগন, এবং অদ্য পর্যন্ত ওই পবিত্র কুরআনের হাফেজের পরিবারের সঙ্গে কেউ মানবতাবোধ ও দেখাননি।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × 3 =