সাংবাদিকদের কন্ঠরোধে শাস্তি জেল ও ১০ লক্ষ টাকা জরিমানার আইন রোধে ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংস্কারের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

0
685

অপরধ বিচিত্রা: সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধে শাস্তি জেল ও ১০ লক্ষ টাকা জরিমানার কালো আইন রোধে এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংস্কারের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ফেডারেশন অফ বাংলাদেশ জার্নালিস্ট অর্গানাইজেশন (এফবিজেও) উদ্যোগে এস এম মোরশেদ এর নেতৃত্বে বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন এবং বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলে স্মারক লিপি প্রদান সম্প্রতি সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানববন্ধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ফেডারেশন অফ বাংলাদেশ জার্নালিস্ট অর্গানাইজেশনের চেয়ারম্যান এস এম মোরশেদ। মানববন্ধন অনুষ্ঠানটির সার্বিক সঞ্চালনায় ছিলেন-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক- মো: আবু তাহের পাটোয়ারী।

৪ দফা দাবি:

(ক) ২০০৫ সালের প্রেস কাউন্সিল প্রস্তাবিত তথ্য ও সম্প্রচার আইন দ্যা প্রেস কাউন্সিল আমেন্ডমেন্ট এ্যাক্ট ২০২২ অনুমোদিত হয় বর্তমানে আইনটি সরকারের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে এ আইনটির কোন প্রয়োজন নেই বিদ্যমান আইনে প্রেস কাউন্সিলে সাংবাদিকদের যে বিচার ব্যবস্থা রয়েছে তা যথেষ্ট বলেই মনে করে সাংবাদিক সমাজ।

(খ)সংবাদপত্র সংশ্লিষ্ট ডিজিটাল নিরাপত্তায়ন সংস্কার করতে হবে এবং বর্তমানে যে মামলা গুলো রয়েছে তা প্রেস কাউন্সিলে হস্তান্তর সহ যেকোনো মামলা দেশের যেকোনো এলাকায় ঘটে থাকুক না কেন তা শুধুমাত্র প্রেস কাউন্সিল এই মামলা করতে হবে এবং প্রেস কাউন্সিলের অনুমতি ছাড়া কোন সাংবাদিককে গ্রেফতার করা যাবে না।

(গ)সাংবাদিকদের পেশাগত কাজে নিরাপত্তা প্রেস কাউন্সিল আইন যুগোপযোগী ও শক্তিশালী করে দেশের অভিন্ন নীতিমালা প্রণয়ন করে সাংবাদিক সংগঠনগুলোকে প্রেস কাউন্সিলের অধীনে নিবন্ধন করতে হবে এবং একটি উপজেলায় একটি সংগঠনের মাধ্যমে সকল সাংবাদিকদের অধিকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। একটিমাত্র কেন্দ্রীয় সংগঠনের মাধ্যমে করতে হবে।

(ঘ) কল্যাণ ট্রাস্টের কালো আইন বাতিল করে  দেশের সকল সাংবাদিককে এর অন্তর্ভুক্ত করে এর সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।

৪ দফা দাবি আগামী ১ মাসের মধ্যে মানা না হলে পরবর্তীতে বৃহত্তর পরিসরে দেশব্যাপী আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

মানববন্ধন অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন দৈনিক এ সময়ের কন্ঠ পত্রিকার সম্পাদক এম এম তোহা, দৈনিক মাতৃ জগত পত্রিকার সম্পাদক খান সেলিম রহমান, ইন্টারন্যাশনাল ডিজিটাল প্রেসক্লাব ও বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এটিএম মমতাজুল করিম, এফবিজেও স্থায়ী পরিষদ ও জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার চেয়ারম্যান লায়ন নুর ইসলাম,

এফবিজেও এর ভাইস চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদ খান, এফবিজেও এর সাধারণ সম্পাদক এস এম হানিফ আলী, এনপিএস নিউজ অফ বাংলাদেশ এডিটর ইনচার্জ মাহাবুবুল ইসলাম, জাতীয় সাংবাদিক ঐক্য ফোরামের সভাপতি সাহেল আহম্মেদ সোহেল, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার যুগ্ম মহাসচিব মো: আলতাফ হোসেন, বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জিএম মুজিবুর রহমান ভূঁইয়া,

এফবিজেও এর ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল আফসার, মোল্লা নাসির উদ্দিন সিনিয়র সাংবাদিক, দৈনিক ক্রাইম বাংলা পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মো: আলামিন খান, দৈনিক নোয়াখালীর খবর পত্রিকার প্রধান সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রুমি, সাংবাদিক সংগ্রাম পরিষদের সমন্বয়ক দেলোয়ার হোসেন ভূইয়া, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার যুগ্ম মহাসচিব মো: ফারুক হোসেন, বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের দপ্তর সম্পাদক শাহানা শাহীন,

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন, লায়ন হিলু, ঢাকা প্রেসক্লাবের কার্যকরি পরিষদের সদস্য সুরাইয়া আক্তার সেলিনা, সাপ্তাহিক দেশের ডাক রিপোর্টার মরিয়াম বেগম, মুন্সিগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটি সাধারণ সম্পাদক মো: রুবেল, এফবিজেও এর যুগ্ম মহাসচিব মো: মামুন ইবনে হাতিমি, মুন্সীগঞ্জ জেলা অনলাইন প্রেস ক্লাবের সভাপতি বিপ্লব হাসান,  সাংগঠনিক সম্পাদক খালেকুজ্জামান পান্নু, দৈনিক মানবাধিকার প্রতিদিন পত্রিকার সহ-সম্পাদক মো: আবুল হাসেম,

দৈনিক বাংলাদেশের আলো পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার মো: জুবায়ের আলম, দৈনিক স্বাধীন সংবাদ এর ফটো সাংবাদিক বৃন্দাবন মল্লিক, দৈনিক রুদ্রবার্তা পত্রিকার সোনারগাঁ প্রতিনিধি জান্নাত, এফবিজেও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইয়াসমিন সুলতানা ইকরা, দপ্তর সম্পাদক এমপি চৌধুরী, এফবিজেও এর সদস্য তাহমিদা ইসলাম তন্নী প্রমূখ।

মানববন্ধন শেষে প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণ থেকে এস এম মোরশেদের নেতৃত্বে বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ মিছিল সহকারে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি নিজামুল হকের নাসিমের  সেগুনবাগিচা কার্যালয়ে স্মারকলিপি নিয়ে জড়ো হয়। প্রেস কাউন্সিল গণমিলনায়তনে স্মারকলিপি প্রদানের উদ্দেশ্যে এ সময় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা জেলসহ বিভিন্ন কালো আইন নিয়ে মতবিনিময় পেশ করেন।

বিকেল ৩টায় প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান কার্যালয়ে এসে পৌঁছে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে চেয়ারম্যান বিচারপতি নিজামুল হক নাসিম ধৈর্য সহকারে স্মারকলিপি গ্রহণ করে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে বক্তব্য রাখেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রেস কাউন্সিল সচিব (যুগ্ম সচিব) মো: শাহ আলম। চেয়ারম্যান বলেন সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ১২ ধারায় তিরস্কার ছাড়া শাস্তি প্রদানের আর কোন আইন নেই। তিনি আরো বলেন ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা থাকবে না তবে কত থাকবে এই মুহূর্তে বলাও যাচ্ছে না।

কোন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে কোন থানায় বা আদালতে মামলা হলে মামলাটির ৪ থেকে ৫ বছর পর্যন্ত চলে এতে সাংবাদিকরা বিভিন্নভাবে হয়রানি ও ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়। প্রেস কাউন্সিলে সাংবাদিকদের বিচার হলে অপসংবাদিকতা রোধ করা যেমন সম্ভব হবে ন্যায় বিচার কায়েম করাও সহজ হবে বলে তিনি একমত পোষণ করেন। তিনি সাংবাদিকদের কল্যাণ  কাজ করে যাওয়ার অঙ্গীকার করেন যে কোন প্রয়োজনে সাংবাদিকদের সাথে প্রেস কাউন্সিল অতিতের ন্যায় পাশে  থাকবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন।

সঞ্চালনায়:-মো: আবু তাহের পাটোয়ারী, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক (এফবিজেও) ও সম্পাদক প্রকাশক, সাপ্তাহিক নবজাগরণ, এ সময় উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বিভিন্ন দৈনিক, সাপ্তাহিক, সংবাদ সংস্থা ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার বিপুল সংখ্যক সম্পাদক সাংবাদিক ও সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × five =