নামে মিষ্টি হলেও তিনি কাজে মিষ্টি নন!

0
367

সম্প্রতি কয়েদিন ধরেই মিডিয়ার এক নায়িকা মিষ্টি জান্নাত নামে হেল্প লাইন প্রতারণার একটি হদিস পাওয়া যায়। সেখানে অভিযােগ উঠে একটি অনলাইনে নাম্বার দিয়ে গরীব দুঃখিদের সাহায্য দেওয়ার কথা থাকলেও পরে সেই নাম্বারটি বন্ধ রেখে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে নিউজ করাতে থাকে। বিষয়টি কয়েকজন বিনোদন কর্মীর নজড়ে আসলে বিষয়টি খতিয়ে দেয়ার উদ্দ্যোগ নেন এবং তারা নিজের খদ্দর সেজে সেই ফোন নাম্বার কল দিতে নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়। বিষয়টি শিওর হবার জন্য মিষ্টি জান্নাতকে ফোন দেওয়া হয়। কিন্তু তাকেও ফোনে পাওয়া যায় না। পরে ভােরের পাতার বিনাদোন সাংবাদিন বিষয়টি ক্লিয়ার হওয়ার জন্য সোস্যাল মিডিয়ায় একটি তাকে উদ্দ্যোশ্য করে একটি নীতিবাচক পোষ্ট করেন। কিন্তু বিষয়টিকে তিনি বাড়িয়ে ওই বিনোদন সাংবাদিককে অপমান আর লজ্জানজকভাবে উল্টো আর একটি পােষ্ট করেন।

তাতে করে তার পােষা আর কিনা কিছু সোস্যাল মিডিয়ার ভাড়া করা পোলাপান দিয়ে সেই বিনোদন সাংবাদিককে পারিবারিকভাবে হেনাস্থার শিকার করেন। বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য কয়েকজন চিত্রপরিচালক এবং কয়েকজন বিনোদন সাংবাদিক জানতে চাইলে তাদের কেউ অশুভনীয় এবং অশ্লীল ভাষায় গাল মন্দ করতে দেখা যায়!

পরে বিষয়টি সহ্য না করতে পেরে ভােরের পাতার সাংবাদিক আর একটি পাল্টা স্ট্যাটাস দেন। এরপর তাকে আগের অনেক গালাগাল ম্যাসেজ ডিলেট করতে দেখা যায়! কিন্তু বিষয়টি সোস্যাল মিডিয়ার আদলে আসলে যেন কেঁচো খুড়তে সাপ বেরিয়ে আসে। একটি পোষ্টে ছন্মনামে এক ব্যাক্তি তাকে নিয়ে লিখেন, ‘এর আগেও তার নামে এক মেডিকেল শিক্ষকের সাথে তার নানা অপকর্মের কথা! এরপর নায়িকা হবার পর এক বিম্ভান্ত শিল্পপতি ও কয়েকজন ব্যবসায়ির থেকে নিজের জন্মদিনে টাকা পয়সা আর সোনার আংটি নেয়ার কথা!

অন্যদিকে আবার প্রশ্ন উঠে তিনি নায়িকা বনে এসে হাজার টাকার গাড়ী আর আলিসান ফ্লাট এবং কিছু জায়গায় নিজের নামে রেস্টুরেন্ট খােলার বিষয়টি আন্দাজ আর ঘােলাটে হতে থাকে। শুধু তাই নয় কয়েকমাস আগে জাতীয় দৈনিকে একটি ক্যাসিনো ক্যালেংকারি উঠেন। যদিও সেখানে শেষ পর্যন্ত নাম পাওয়া যায়নি।

তবে একটি অফিস পিয়নের বিশ্বস্থসূত্রে খরব পাওয়া যায় শাকিব খানের সাথে ছবি করার জন্য তাকে দিনের পর দিন কুখ্যাত বিজনেসম্যান জিকে শামীমের অফিসে বসে থাকতে দেখা গেছে। তাতে তিনি কোন ফয়দা লুটতে পারেনি। তার কিছু অসৎ আচারণের জন্য সুপারস্টার শাকিব খান তার সাথে আর ছবি করতে পরে রাজী হননি! কিন্তু শাকিব খানের উপর প্রতিশোধ নেয়ার জন্য তিনি একাধিক সাংবাদিকদের টাকা, জামা কাপড়, এমনকি নেশা দ্রব্য দিয়ে নিউজ করানো জন্য হাতে পায়ে ধরে…

অন্যদিকে শাে’রুমের টাকা পয়সার ঝামেলার বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য শো’ রুমের ম্যানেজার মামুন আবিদ ও সাঈদ গােপনে মিমাংসার করা জন্য অনুরোধ করে। কিন্তু আবিদ ও সাঈদ বিষয়টি অনেক হয়রানি করাতে তারা তাদের ক্ষিপ্ত হন। যায় মোবাইল রের্কড আবিদের কাছে আছে বলে জানা যায়।

তাহলে কি দাঁড়ায়! নামেই সে কি মিষ্টি, কাজে নন!! সেটি শুধু এখন সবার প্রশ্ন… বাকী সব জানা যাবে আগামী পর্বে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

thirteen + ten =